সেবাঘর সংঘের যুগপূর্তি

0

মননশীল মানবিক সাংস্কৃতিক সংগঠন সেবাঘর সংঘ’র যুগপূর্তি উৎসবে উদযাপিত হয়েছে জাতিসংঘ ঘোষিত বিশ্ব শান্তি দিবস। সংঘের বার্ষিক উৎসব হিসেবে পঞ্চমবারের মতো নিয়মিত এই আয়োজন করা হয় জেলা শিল্পকলা একাডেমি’র আর্ট গ্যালারি হলে।

আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের গেরিলা কমান্ডার ও উপন্যাসিক ফণী ভূষণ দাশ।

এছাড়াও বিশিষ্ট সমাজসংস্কারক, দি চিটাগং ট্রাস্ট’র সভাপতি অধ্যাপক স্বদেশ চক্রবর্তী, কবি ও সাহিত্যিক বাদল সৈয়দ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সমাজ সেবা অফিসার অভিজিৎ সাহা বক্তব্য রাখেন।

বিশ্বশান্তি নিয়ে আলোচনায় বক্তারা বলেন, সেবাঘর সংঘের শ্লোগান ‘একবিশ্ব-একদেশ-একসত্য-মনুষ্যত্বকে ধারণ করতেপারলেবিশ্বশান্তি আসবে । ঘরের কাজের লোক, সাধারণ রিকশাওয়ালা ও শ্রমিকদের সাথে ভাল আচরণ করতে পারলে, মিথ্যাচারকে পরিহার করতে পারলে, পরিবেশ-প্রকৃতিকে ধ্বংস না করে প্রকৃতিসম্মত জীবন যাপন করতে পারলে, সেই সাথে চরিত্রগঠন, সততা ও সহজ সরল জীবন যাপনের মধ্যদিয়ে ব্যক্তি-সমাজ-রাষ্ট্রের শান্তি ও উন্নতি নিশ্চিত করা সম্ভব।

এবার ‘সেবাঘর শান্তি সম্মাননা স্মারক-২০১৯’ তুলে দেওয়া হয় ফণী ভূষণ দাশকে। তাঁর প্রতিষ্ঠিত ইউ এন নিবন্ধিত শান্তি সংঘ “ওয়ার্ল্ড ফ্রেন্ডশিপ এন্ড পিস সোসাইটি (ডব্লিউএফপিএস)” কর্তৃক সেবাঘর সংঘের কর্মীদের “বার্ড অব পিচ – শান্তির পায়রা” এবং পরিচালকদের “মেসেঞ্জার অব পিচ-শান্তির দূত” হিসেবে ভূষিত করে শান্তি সনদ প্রদান করা হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে সেবাঘর সংঘের নিজস্ব সংগীত “মানবিক আনন্দধারার” কিছু গান পরিবেশিত হয়। পরিবেশন করেন শিল্পী

অভিষেক দাশ, ঐশি বড়ুয়া, সোনিয়া নাথ, তুষিতা দেবী, হৃদান চৌধুরী, ঐশি দাশ মম, প্রণমী চৌধুরী ও রোপিয়া দাশ রুশ্নি। আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তি শিল্পী স্বপন দাশ।

শান্তি বক্তব্য পাঠ করেন পিপলু বড়ুয়া। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন সৈকত প্রকৃতি। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সেবাঘর সংঘের মহাপরিচালক আনন্দ প্রকৃতি।

জয়নিউজ/আরডি/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...