মুক্তিপণ নিতে এসে পুলিশের জালে অপহরণকারী, অপহৃত যুবক উদ্ধার

0

নগরের খুলশীর ইউএসটিসি হাসপাতালের সামনে মুক্তিপণের টাকা নিতে এসে পুলিশের জালে আটক হন এক অপহরণকারী। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে আটক করা হয়েছে আরো দুই অপহরনকারীকে। এসময় অপহৃত যুবকেও উদ্ধার করা করে পুলিশ।

শুক্রবার( ১১ অক্টোবর) সকালে  খুলশী থানার অভিযানে তাদের আটক করা হয়। আটকরা হলো, আকবারশাহ থানার মনছুরাবাদ এলাকার শামসুল আলমের ছেলে ইফতেখারুল আলম (২৫), সন্ধীপের শিবেরহাট এলাকার শাহাবউদ্দিনের ছেলে তালিম উদ্দিন (২৪) ও পটিয়ার উত্তর গোবিন্দরখিল এলাকার ওসমান গণির ছেলে সালেহীন আরাফাত (২৮)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়,  একটি ওষুধ কোম্পানির মেডিকেল প্রমোশন অফিসারের চাকরির সুবাধে  নগরের বিভিন্ন এলাকার ডাক্তারের চেম্বারে যেত হাসান তারেক। ডাক্তার পরিচয় দেওয়া ইসরাত নামের এক নারী বিশ্বকলোনির অন্য এক ডাক্তারের  চেম্বারে তারেককে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেন। বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় তারেককে চেম্বারের নিয়ে যাওয়ার নাম করে বিশ্বকলোনির ডি বক্লের একটি বাসায় কৌশলে নিয়ে তাকে আটকে রাখে। পরে তারেকের পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। ব্যাংক বন্ধ থাকায় মুক্তিপণ হিসেবে ব্ল্যাংক চেকে চাওয়া হয়। কথা হয় রোববার (১১ অক্টোবর) ব্যাংক থেকে টাকা তোলার পর ছেড়ে দেওয়া হবে। এদিকে তারেকের পরিবার ৯৯৯ এ ঘটনাটি জানায়। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় ৯৯৯ থেকে  খুলশি থানা পুলিশের কাছে এ তথ্য জানানো হয়। পরে পুলিশ টানা তিন ঘন্টার অভিযান তিন অপহরণকারীকে আটক করে। উদ্ধার করা হয় অপহৃত যুবককে।

অভিযান পরিচালনকারী খুলশী থানার এস আই খাজা এনাম এলাহী জয়নিউজকে বলেন, তথ্য পাওয়ার পর আমরা তারেকের এক স্বজনকে নিয়ে অভিযানে যায়। ওই স্বজনকে চেক নিয়ে অপহরণকারীর কাছে পাঠায়। পাশে ছদ্মবেশে আমাদের টিম অবস্থান নেয়। চেক নিয়ে যাওয়ার সময় আমরা এক ব্যক্তিকে আটক করি। পরে তার দেওয়া তথ্য মতে আকবারশাহ থানার বিশ্বকলোনির ডি বক্লের একটি বাসা আরো দুইজনকে আটক করা হয়। অপহৃত যুবককেও অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। ইসরাত নামে ওই মহিলাকে আটক করা যায়নি।

খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রণব চৌধুরী জয়নিউজকে বলেন, অপহরণের পর মুক্তিপণ দাবি করলে ৯৯৯ এ ঘটনাটি জানায় তার স্বজনরা। পরে ৯৯৯ থেকে আমাদের জানানো হলে আমরা মুক্তিপণের চেক নিয়ে ছদ্ধবেশে টিম পাঠাই। পরে অভিযান পরিচালনা করে অপহরণকারী চক্রটিকে আটক করি।

তিনি আরো বলেন, ঘটনাটি আকবারশাহ থানা এলাকায় হওয়ায়। আমরা আসামীদের আকবারশাহ থানায় হস্তান্তর করেছি।

জয়নিউজ/রিফাত/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...