বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্যই ভারতের বৈশিষ্ট্য: মোদি

0

দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা অযোধ্যা মামলার রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। সেই নিয়েই গোটা দেশে আলোচনা তুঙ্গে। ভারতের সরকার থেকে শুরু করে বিরোধী রাজনৈতিক দল, দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব–সবাইকে শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

এই পরিস্থিতিতে দেশবাসীর উদ্দেশে শনিবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যfয় ভাষণ দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

তাঁর কথায়, দেশবাসী খোলা মনেই সুপ্রিম কোর্টের রায়কে মেনে নিয়েছেন। যা প্রমাণ করে ভারতের গণতন্ত্র কতটা শক্তিশালী। মোদির মতে, এবার নতুন ভারত তৈরি হবে। সবাইকে সঙ্গে নিয়েই এগিয়ে যাবে গোটা দেশ। দেশের ইতিহাসে এটি ছিল একটি ঐতিহাসিক রায়।

নিজের বক্তব্যে তিনি করতারপুর করিডর চালু এবং অযোধ্যা মামলার রায়কে তুলনা করেন ‘বার্লিন দেওয়াল’ ভেঙে ফেলার ঘটনার সঙ্গেও। তাঁর দাবি, জার্মানির বিখ্যাত বার্লিন দেওয়াল ভেঙে ফেলার ঘটনার মতোই তাৎপর্যপূর্ণ করতারপুর করিডরের চালু হওয়া এবং অযোধ্যা মামলার এই রায়।

মোদি আরও বলেন, ‘আদালতের রায়ের দিকে তাকিয়ে ছিল গোটা দেশ। এদিনের রায় খোলা মনেই মেনে নিয়েছেন প্রত্যেক দেশবাসী। আজ গোটাবিশ্ব জানল ভারতের গণতন্ত্র কতটা মজবুত।

শুধু তাই নয়, এ রায়ের পর আমাদের দেশের বিচারব্যবস্থার উপর আস্থা আরও বাড়ল। আসলে বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্যই এই দেশের বৈশিষ্ট্য। আজ নতুন ইতিহাস রচনা করল ১২৫ কোটির ভারতবর্ষ। কঠিন থেকে কঠিনতম সমস্যার সমাধানও রয়েছে আমাদের সংবিধানে, আজ সেটা প্রমাণিত হল।

আজকের দিনেই ‘বার্লিন ওয়াল’ ভেঙে ফেলা হয়েছিল। আর আজকেই ফের একবার শুরু হল করতারপুর করিডর। শেষ হল বহুদিন ধরে চলা অযোধ্যা মামলা। আর এই সবের মধ্যে দিয়েই আজ আমরা এগিয়ে যাওয়ারও শিক্ষাও পেলাম। দেশবাসী বুঝতে পারল, সময় লাগলেও ধৈর্যের কোনও বিকল্প নেই।’

মোদি আরও বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে চলা আসা এই মামলার শুনানিতে সর্বপক্ষের বক্তব্যই মন দিয়ে শুনেছে সুপ্রিম কোর্ট। এবার থেকে নতুন প্রজন্ম নতুনভাবে শুরু করতে পারবে। এবার নতুন ভারত তৈরি হবে। আমরা সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলব। দেশ গঠনে দায়িত্ব কিন্তু আরও বাড়ল।’

জয়নিউজ/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...