পাঠাও সার্ভিস দিচ্ছে সন্দেহে মোটরসাইকেল চালককে মারধর

0

সড়ক পরিবহন আইন বাতিলের দাবিতে ডাকা ধর্মঘটে পাঠাও সার্ভিস দিচ্ছে সন্দেহে সালেহ আহমেদ নামে এক মোটরসাইকেল চালককে মারধর করেছে পরিবহন শ্রমিকরা।

বুধবার (২০ নভেম্বর) বিকেলে নগরের ফয়’সলেক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এর আগে পণ্য পরিবহন শ্রমিকরা এ ধর্মঘটের ডাক দেয়।

ধর্মঘটে শ্রমিকরা কর্ণেলহাট, এ কে খান ও ফয়’সলেক এলাকায় পাঠাও চালকদের মোটরসাইকেলের চাবি নিয়ে তাদের জিম্মি করাসহ চালকের মুখে কালি মেখে হেনেস্তা করার অভিযোগ রয়েছে। একইসঙ্গে গণপরিবহন থেকে সাধারণ যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়ারও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মোটরসাইকেল চালক সালেহ আহমেদ জয়নিউজকে বলেন, আমি আমার ব্যক্তিগত কাজে জিইসি মোড়ে যাচ্ছিলাম। হঠাৎ পরিবহন ধর্মঘটে থাকা কয়েকজন যুবক আমাকে পাঠাও চালক বলে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। এসময় তারা আমার বাইক যেতে দিবে না বলে। তাদের আমি বার বার বুঝাতে চেষ্টা করেছি যে, আমি পাঠাও চালক না। আমার বাইকে আমি একা থাকা সত্ত্বেও তারা আমার কথা না শুনে চাবি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমি চাবি দিতে না চাইলে তারা আমাকে মারধর করে। একপর্যায়ে তারা আমার মোটরসাইকেলও ভাঙচুর করে।

পাঠাও চালক মো. খুরশীদ আলম জানান, আমি যতদূর জানি এটা পণ্য পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘট। তাহলে তারা আমাদের পাঠাও চালকদের বাধা দিচ্ছে কেন, এটা বোধগম্য নয়।

‘আমি একটু আগে কর্ণেলহাট এলাকায় তাদের হয়রানির স্বীকার হয়ে আসছি। রাস্তায় দাঁডিয়ে থাকা শ্রমিকরা আমার লাইসেন্স ও চাবি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল। আমি দিতে না চাইলে তারা আমার মুখে পোড়া মবিল মেখে দেয়।’

আন্দেলনরত পরিবহন শ্রমিক মো. ইসমাইলের সঙ্গে কথা হয় জয়নিউজের। তিনি বলেন, আমরা চালকরা ভাড়া না মেরে আন্দোলন করছি। পাঠাও চালকরা ভাড়া মারবে, ওরা টাকা কামাবে, তা কেন হবে। তারাও ড্রাইভার, আমরাও ড্রাইভার। তাদের আমাদের সঙ্গে আন্দোলন করতে হবে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ জাতীয় সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের পূর্বাঞ্চলের (সিলেট-চট্টগ্রাম) সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন জয়নিউজকে বলেন, শুধুমাত্র পণ্য পরিবহন শ্রমিকদের চলা ধর্মঘটে আমাদের নৈতিক সমর্থন রয়েছে। তবে ধর্মঘটে কোনো চালক বা যাত্রীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার না করতে আমাদের থেকে নিদের্শনা দেওয়া হয়েছে। তবে যাত্রীবাহী কোনো পরিবহনে বাধা দেওয়ার বিষয়ে আমাদের কোনো নির্দেশনা নেই।

শ্রমিকদের সঙ্গে কিছু উৎসুক স্থানীয় ছেলে ধর্মঘটে ঢুকে গেছে। তারা অতি উৎসাহি হয়ে এসব কাজ করতে পারে।– যোগ করেন তিনি।

জয়নিউজ/রিফাত/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...