আমিরাতের অভিজ্ঞতা শোনালেন ইডিইউর শিক্ষার্থীরা

0

ইয়াসার হোসেন বলুন অথবা আয়েশা তাসকিয়া কিংবা ত্রয়ী লালা, তারা প্রত্যেকেই এখন ফ্রি ইকোনমিক জোন বা আইবিএম এর মতো বিশ্বের অন্যতম জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান কিভাবে পরিচালিত হয় তা জানে। কিংবা একটি শহরের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কি রকম হওয়া উচিৎ, কেউ জিজ্ঞেস করলেই চটপট বলে দিতে পারবে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির (ইডিইউ) ২০ জন শিক্ষার্থী।

কেননা, দুবাই আবুধাবির মতো আন্তর্জাতিক বাণিজ্য নগরীতে নিয়ে গিয়ে তাদের অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করেছে ইডিইউ।
ছাত্রছাত্রীর মধ্যে প্রতিষ্ঠান পরিচালনার জ্ঞান এবং নেতৃত্ব ও উদ্যোক্তা তৈরি করতে ইন্টারন্যাশনাল গ্র্যাজুয়েট লিডারশিপ এক্সপেরিয়েন্স (আইজিএলই) নামের এ কোর্স চালু করেছে ইডিইউ।

বাংলাদেশে প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে শিক্ষার্থীদের প্রতি সেমিস্টারে বিশ্বের উন্নত বাণিজ্য নগরগুলোতে নিয়ে যাচ্ছে এ বিশ্ববিদ্যালয়। এতে প্রথম ব্যাচে অংশ নিয়েছে ২০ জন। তাদের সঙ্গে যোগ ছিলেন ৪জন ফ্যাকাল্টি মেম্বার ও ৩ জন প্রশাসনিক কর্মকর্তা।

আট দিনের সফর শেষে সম্প্রতি ফিরেছেন তারা। তাদের এ অভিজ্ঞতা অন্য শিক্ষার্থীদের মাঝে ছড়িয়ে দিতেই মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) এই ‘এক্সপেরিয়েন্স শেয়ারিং প্রোগ্রাম’ এর আয়োজন করা হয়।

ইডিইউর প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান বলেন, ইডিইউকে বিশ্বঅঙ্গনে তুলে ধরার অন্যতম পদক্ষেপ আমাদের এই কোর্স। বর্তমান গ্লোবালাইজেশনের ধারার সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যকে পূরণের পাশাপাশি তাদের ক্যারিয়ারকে গতিময় করে তুলতে এই আয়োজন।

নিজেদের উন্নত করার স্পৃহা জাগিয়ে তুলতে আইজিএলই শিক্ষার্থীদের এ অভিজ্ঞতা সম্পর্কে অন্যান্য শিক্ষার্থীদের জানা জরুরি। দুবাই-আবুধাবিতে বেশ কয়েকটি বড় প্রতিষ্ঠান ও গুরুত্বপূর্ণ স্থান পরিদর্শনের পাশাপাশি তারা বেশ কয়েকটি সেশনে মিলিত হন। এসব সেশনে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন স্ব-স্ব ক্ষেত্রে দীর্ঘদিনের কাজে অভিজ্ঞ ব্যক্তিরা।

এরমধ্যে রয়েছেন আমিরাতের টিকম গ্রুপের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা শাজাদী দুররানি, আমিরাত এনবিডি ব্যাংকের গ্রুপ ক্রেডিট এর ভাইস প্রেসিডেন্ট সোহরাব সায়ীদ এবং বিশ্বখ্যাত কম্পিউটার প্রতিষ্ঠান আইবিএম এর সফটওয়্যার ক্লায়েন্ট আর্কিটেক্ট রাহিদ খন্দকার, একটি আন্তর্জাতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক উজায়ের হাসান প্রমুখ।

কালচারাল হেরিটেজ সাইট, গ্লোবাল ভিলেজ, আবুধাবি ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট অথরিটি, যায়েদ ইউনিভার্সিটি, নলেজ পার্ক ও ফ্রি জোন, বিজনেস বে ফাইন্যান্সিয়াল ডিস্ট্রিক্ট, কুরআনিক পার্কসহ আরো নানা সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ও স্থান তারা পরিদর্শন এবং সেশনে উপস্থিত হন।

নিজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে বলতে গিয়ে সৈয়দ মো. ফারহান জানায়, এই কোর্সে বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন ছাড়াও আমাদের মাঝে লিডারশিপ ও সফটস্কিল উন্নত করার বিষয়ে জোর দেওয়া হয়। নানাধরনের টিমবিল্ডিং এক্টিভিটির মাধ্যমে দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ পরিচালনা করেন আন্তর্জাতিক ট্রেনাররা। আইজিএলই শুধুমাত্র একটি কোর্স নয়, এটি আমাদের জন্য একটি লাইফটাইম এচিভমেন্ট।

শিক্ষার্থী মাইমুনা মানিতা বলেন, বিদেশের সংস্কৃতি, তাদের মানুষজনের সঙ্গে কাজ করার ইচ্ছে বহুদিনের। ইডিইউর এ কোর্সে সেই সুযোগটা পাচ্ছি। একেবারে ভিন্ন একটি পরিবেশে নিজেদের সক্ষমতাকে নিরূপণ করতে পারছি নতুন করে।

জয়নিউজ/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...