স্বপ্ন নিয়ে শুরু ‘স্বপ্নযাত্রা’

0

রামুতে স্বপ্নযাত্রা’র যাত্রী হয়ে ঘুরে বেড়াবে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার প্রতি আকর্ষণ ও ঝরেপড়া হার কমাতে এবং শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়মুখী করতে শিক্ষাবান্ধব বাস ‘স্বপ্নযাত্রা’র উদ্বোধন করা হয়েছে।

রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এই শিক্ষাবান্ধব বাস স্বপ্নযাত্রার উদ্বোধন করেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন।

সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) বিকাল ৪টায় স্বপ্নযাত্রার উদ্বোধন করা হয়।

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার হিসেবে বক্তৃতা করেন কক্সবাজারের সংরক্ষিত মহিলা সাংসদ কানিজ ফাতেমা আহমেদ।

রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্বপ্নযাত্রার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন কক্সবাজার জেলা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সভাপতি অ্যাডভোকেট তোফায়েল আহমেদ, রামু উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গৌর চন্দ্র দে।
স্বপ্নযাত্রার উদ্বোধক ও চিফ অনার মো. কামাল হোসেন বলেন, রামুতে যাত্রা শুরু করেছে শিক্ষাবান্ধব বাস স্বপ্নযাত্রা। শিক্ষার ক্ষেত্রে শিশুদের সঙ্গে আমরা যেন সবসময় থাকি। যে যেই পেশায় আছি, আমরা যেন শিক্ষাবান্ধব হই। স্বপ্নযাত্রা শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষার প্রতি আকর্ষণ বাড়িয়ে তুলবে। শিশুরা বিদ্যালয়মুখী হবে, ঝরেপড়া শিক্ষার্থীর হার কমে যাবে। শিক্ষার্থীদের মধ্যে বাস্তবভিত্তিক জ্ঞানের প্রসারতা বাড়বে। গঠনমূলক এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক শিক্ষার প্রসার ঘটবে।

সংস্কৃতিকর্মী মানসী বড়ুয়ার সঞ্চালনায় স্বপ্নযাত্রার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) চাইথোইলা চৌধুরী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া, রামু সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবদুল হক, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক চেয়ারম্যান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফসানা জেসমিন পপি, রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) এসএম মিজানুর রহমান।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসক বলেন, শিক্ষায় আমরা পিছিয়ে আছি। স্বপ্নযাত্রার মতো ছোট ছোট সুযোগ তৈরি হলে, শিক্ষার্থীরা এগিয়ে যাবে। শিক্ষার প্রসারে আমরাও এগিয়ে যাবো। আমরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতি, শিশুদের প্রতি সদয় হই সজাগ দৃষ্টি রাখি।
তিনি আরও বলেন, সুন্দর ব্যবস্থার মাধ্যমে আমরা মানবিকতাকে কাছে পাবো। সবাই মিলে ভালো কাজগুলো করি। আমার এলাকা যদি শিক্ষাবান্ধব হয়, আমার শিশু যদি শিক্ষিত হয়। তবেই বাংলাদেশকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় মানবিক দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে পারব।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, প্রতি সপ্তাহে ক্যাচমেন্ট এরিয়ার অধীন দুটি স্কুল নির্ধারণ করা হবে। উক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সমূহে প্রতি বুধবার ক্লাস পরীক্ষার আয়োজন করা হবে। প্রতি ক্লাস থেকে সর্বোচ্চ নম্বরধারী ৪ জন শিক্ষার্থী নিয়ে মোট ৪০ জন শিক্ষার্থীকে প্রতি বৃহস্পতিবার অর্ধদিবসে ‘স্বপ্নযাত্রা’ কক্সবাজার জেলার শিক্ষামূলক স্থান পরিদর্শন করবে এবং স্বপ্নযাত্রায় বিভিন্ন বিনোদনমূলক ও শিক্ষামূলক চিত্র প্রদর্শন করা হবে। এতে আপ্যায়নের ব্যবস্থাও থাকবে বলে ইউএনও জানান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো উপজেলা পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের বিনোদন নির্ভর শিক্ষা প্রসারের লক্ষে ‘স্বপ্নযাত্রা’ বাসের উদ্বোধন করা হলো। সুশিক্ষিত মানুষ গড়ার স্বপ্ন নিয়ে বাসটির যাত্রা শুরু তাই এর নাম হয়েছে স্বপ্নযাত্রা।
উপজেলা প্রশাসনের ব্যতিক্রমধর্মী এ উদ্যোগ রামুকে শিক্ষা নগরী করার মহৎ উদ্যোগকে আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে বলে মনে করছেন রামুর শিক্ষানুরাগীরা।

এরআগে জেলা প্রশাসক সোমবার দুপুর ২টায় রামু উপজেলা পরিষদে ওয়ান-স্টপ সার্ভিস ও উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার ‘খোলা জানালা’ উদ্বোধন করেন।

জয়নিউজ/খালেদ/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...