চবিতে প্রতিপক্ষকে মারধর, ছাত্রলীগ কর্মী বহিষ্কার

0

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) প্রক্টর ও সাধারণ সম্পাদকের সামনেই প্রতিপক্ষের এক কর্মীকে মারধর করেছে ছাত্রলীগের আরেক কর্মী। এ ঘটনায় তাকে এক মাসের জন্য বহিষ্কার করেছে শাখা ছাত্রলীগ।

সোমবার (২০ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে প্রক্টরের কার্যালয়ে মারধরের ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার শিক্ষার্থী মো. শুভ ইংরেজি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। সে শাখা ছাত্রলীগের সাবেক উপ-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক রকিবুল হাসান দিনারের অনুসারী রেড সিগনাল গ্রুপের কর্মী।

অন্যদিকে মারধরকারী ইফরাতুল আলম পিটু ইতিহাস বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। সে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর অনুসারী সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মী।

বহিস্কারের আদেশ জানিয়ে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ‘চবি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডের কারণে ইফরাতুল আলম পিটুকে এক মাসের জন্য বহিষ্কার করা হলো।’

সোমবার থেকেই বহিষ্কারাদেশ কার্যকর হবে বলেও জানানো হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ তার অনুসারীরা প্রক্টরের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের জন্য যায়। তখন অন্য এক ঘটনা মীমাংসার জন্য আরএস গ্রুপের কয়েকজন কর্মী সেখানে উপস্থিত ছিল। বিষয়টি মীমাংসার সময় চেয়ারে বসা নিয়ে ইফরাতুল আলম পিটুর সঙ্গে মো. শুভর কথা কাটাকাটি হয়। এতে শুভকে কিল ঘুসি মারে পিটু।

এ বিষয়ে রেড সিগনাল গ্রুপের নেতা রকিবুল হাসান দিনার বলেন, তাদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি থেকে এ ঘটনা ঘটেছে।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, শুভ সিনিয়রের সঙ্গে বেয়াদবি করেছে। এতে সবাই উত্তেজিত হয়ে পড়ে। আমি তাকে রক্ষা করেছি।

ঘটনার বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক এসএম মনিরুল হাসান জয়নিউজকে বলেন, এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব না। তখন দুই পক্ষের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন। তারা কী বিচার করছে সেটা দেখে আমরা ব্যবস্থা নিব।

জয়নিউজ/নবাব/এসআই

সরাসরি আপনার ডিভাইসে নিউজ আপডেট পান, এখনই সাবস্ক্রাইব করুন।

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...