আধ্যাত্মিক ভ্রাতৃসংঘের প্রতিষ্ঠাতা সাইফুর রহমান নিজামী শাহের হাতে একুশে পদক

0

হযরত আল্লামা হাফেজক্বারী ছাইফুর রহমান নিজামী শাহ। ২০২০ সালে গবেষণায় একুশে পদক পাচ্ছেন তিনি। কোরআন সুন্নাহ সহ ইসলামী বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নানা গবেষণা রয়েছে তাঁর।

তিনি ১৯১৫ সাল মোতাবেক ১৩৩৩ হিজরী সবে কদরের রাতে চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার ইছাখালী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।তাঁর পিতা হযরত আল্লামা গোলাম রহমান এছমতী (রহঃ) প্রকাশ বড় হাফেজ কেবলা প্রখ্যাত কামেল অলি ছিলেন। ছাইফুর রহমান নিজামী শাহ তিন ছেলে দুই মেয়ের জনক।

হযরত ছাইফুর রহমান নিজামী শাহ গবেষণাধর্মী অনেক বই লিখেছেন। যেমন সুন্নি আকিদা ভিত্তিক খোতবাতে রহমানিয়া (আরবী ও বাংলা), সৃষ্টির অদ্বিতীয় বিদ্যার সা্গর, হাজের নাজের নবী দিবাকর, আল ইমাম ফিল মিলাদে ওয়াল কিয়াম, হায় কবরের পথে, ইসলামী পর্দা ও সুন্নি জামাত, ছাত্র-ছাত্রী কালজয়ী মনিষী, কালেমায়ে তৈয়্যোবা, আর রাইদাতুল ওয়াহেদা লিল ফিরকাতিল বাতেলা আরবী ও লন্ডনের ভাষণ ইত্যাদি। তার পৃষ্ঠপোষকতায় মাসিক পত্রিকা আসল পথও আঞ্জুমান কর্তৃক প্রকাশিত হচ্ছে।

১৯৬০ সালে ঢাকা সরকারী আলিয়া মাদ্রাসা হতে টাইটেল পরিক্ষায় হাদিসে বোর্ডের শীর্ষস্থান (প্রথম শ্রেনীতে প্রথমস্থান) সুনামের সাথে অর্জন করেন। তিনি মাতৃ গর্ভজাত অলি ছিলেন। তিনি বিভিন্ন মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেন। বিশেষ করে তিনি চট্টগ্রামস্থ জামেয়া আহমদিয়া ছুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসায় ১ম মুহাদ্দিস হিসাবে শিক্ষকতা করেন। ১৯৭৩ সালে তিনি আঞ্জুমানে ইখওয়ানে মারেফাত (আধ্যাত্মিক ভ্রাতৃসংঘ) প্রতিষ্ঠা করেন।

১৯৭৩ সালে মিরসরাই মস্তাননগর শাহ গোলাম রহমান(রহ.) এতিম খানা এবং ১৯৭৫ সালে জামেয়া রহমানিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন। এছাড়া আরো বহু সামাজিক কর্মকান্ড যেমন- বার আওলিয়া কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, খাজা আজমিরী সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, বাইতুর রহমান জামে মসজিদ  এবং বিভিন্নস্থানে রহমানী দরবার, খানকা শরীফ তাঁর অক্লান্ত চেষ্টা ও পৃষ্টপোষকতায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

জয়নিউজ

 

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...