বিশ্বজয়ী বাংলাদেশ

0

অবশেষে এসেছে স্বপ্নের জয়। যুবদের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। যেকোনো ফরম্যাটের ক্রিকেট বিশ্বকাপে এটিই বাংলাদেশের প্রথম শিরোপা।

জয়ের জন্য অর্ধেক কাজটা বোলিংয়ে শেষ করে রাখে বাংলাদেশ। প্রথমে ব্যাট করতে নামা শক্তিশালী ভারতকে তারা আটকে দেয় ১৭৭ রানে। বাংলাদেশের বোলিং তোপে ৪৭.২ ওভারে অলআউট হয়ে যায় ভারত।

ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৮ রান করেন ওপেনার জয়সাল। এছাড়া তিলক ৩৮ এবং ধ্রুব ২২ রান করেন।

এদিকে শামীমের কথা বাদ দিলে বাংলাদেশের সব বোলাররাই নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছেন। সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন অভিষেক। ৯ ওভারে রান দেন ৪০।

দুর্দান্ত বোলিং করা শরিফুল ৩১ রানে নেন ২ উইকেট। পরপর দুই বলে দুটি উইকেট নিয়ে তিনি বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান। এছাড়া সাকিব ২৮ রানে ২ উইকেট এবং রাকিবুল হাসান ২৯ রানে নেন ১ উইকেট।

বোলিংয়ের পাশাপাশি বাংলাদেশের ফিল্ডিংও বেশ ভালো ছিল। ভারতের ইনিংসের দুটি উইকেটের পতন হয় রানআউটে।

একপর্যায়ে ভারতের রান ছিল ১ উইকেটে ১০৩ রান। সেখান থেকে ১১৪ রানে হয়ে যায় ৩ উইকেট। চতুর্থ উইকেটে ৪২ রানের জুটি হয়। এরপর দারুণভাবে ম্যাচে ফিরে আসে বাংলাদেশ। মাত্র ২১ রানে মধ্যেই পড়ে যায় ভারতের বাকি সাত উইকেট। ১৫৬ রানে ৩ উইকেট থেকে ১৭৭ রানে অলআউট ভারত।

ব্যাটিংয়ে উড়ন্ত সূচনা করে বাংলাদেশ। ওপেনিং জুটিতে আসে ৫০ রান। কিন্তু এরপরই ছন্দপতন। বিনা উইকেটে ৫০ থেকে ১০২ রানে নেই ৬ উইকেট! রিটার্ড হার্টে যাওয়া ইমন ফের নামেন ব্যাট করতে। এলো ৪১ রানের মূল্যবান জুটি। অসাধারণ ক্যাচে ইমন (৪৭ রান) আউট হলে ফের শঙ্কা।

না, এবার আর ক্রিকেটপ্রেমী বাংলাদেশীদের টেনশনে রাখেনি ক্যাপ্টেন আকবর। ৪৩ রানের ইনিংসে দলকে পৌঁছে দেন জয়ের বন্দরে। তাকে দারুণ সঙ্গ দেন রাকিবুল।

শেষদিকে বৃষ্টি এসে নাটকীয়তা সৃষ্টি করেছিল। তবে বৃষ্টির পর খেলা শুরু হলে ১৫ রানের টার্গেটটা হয়ে যায় ৮। কোনো উইকেট না হারিয়েই সেই লক্ষ্যে পোঁছে যায় বাংলাদেশ। আর বিশ্বজয়ের আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে বাংলাদেশজুড়ে।

জয়নিউজ

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...