ভোটের অধিকার রক্ষার জন্য নির্বাচনে অংশ নিয়েছি: শাহাদাত

0

গণতন্ত্রের শেষ মাধ্যম ভোটের অধিকারকে রক্ষার জন্য ও বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনকে বেগবান করতে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেনের সংবর্ধনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকালে নগর বিএনপি আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠান নাসিমন ভবন দলীয় কার্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় শাহাদাত বলেন , জলাবদ্ধতামুক্ত, পরিচ্ছন্ন, হেলদি সিটি, গ্রিন সিটি ও পর্যটন নগরীতে পরিণত করার জন্য আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে। আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে চট্টগ্রামকে বিশ্বের অন্যতম নগরীতে পরিণত করবো।

শাহাদাত আরও বলেন চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপ-নির্বাচন ও ঢাকা সিটি নির্বাচনে জনগণ ভোট কেন্দ্র বিমুখ হয়ে গেছে। নির্বাচন কমিশন এখন নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করছে না। সরকার, প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশন মিলে একাকার হয়ে গেছে। রাষ্ট্রযন্ত্রের প্রতিটি অঙ্গ এখন আওয়ামী যন্ত্রে রূপান্তরিত হয়েছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেলস্টেশনে সমাবেশ করেছে, স্লোগান দেওয়া হয়েছে। অথচ আমাদেরকে পুরাতন রেলস্টেশন চত্বরে যাওয়ারও সুযোগ দেওয়া হয়নি। প্রশাসনের ভাইদের বলতে চাই, আপনারা বিএনপির প্রতি বিমাতাসূলভ আচরণ করে একপক্ষীয় যে চিন্তা করছেন, সেখানে আপনারা বোকার স্বর্গে বাস করছেন। চট্টগ্রামবাসী এ হীন ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙা জবাব দেবে।

নগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আবু সুফিয়ানের সভাপতিত্বে সংবর্ধনায় বক্তব্য রাখেন নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা বেগম রোজী কবীর, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, নগর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা একরামুল করিম ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ব্যারিস্টার মীর মো. হেলাল উদ্দিন।

নগর বিএপির যুগ্ম সম্পাদক ইয়াসিন চৌধুরী লিটন ও সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলামের যৌথ পরিচালনায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা এমএ হালিম, এমএ আজিজ, চাকসু ভিপি নাজিম উদ্দিন, অধ্যাপক শেখ মহিউদ্দিন, ইদ্রিস মিয়া চেয়ারম্যান, এনামুল হক এনাম, আলী আব্বাস, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, সামশুল আলম, হাজী মোহাম্মদ আলী, নাজিমুর রহমান, জয়নাল আবেদীন জিয়া, হারুন জামান, অধ্যাপক নুরুল আলম রাজু, ইকবাল চৌধুরী, এসএম সাইফুল আলম, নুরুল আমিন, ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন, নুরুল আমিন চেয়ারম্যান, কাজী বেলাল, শাহ আলম, ইসকান্দর মির্জা, আরইউ চৌধুরী শাহীন, আবদুল মান্নান, আহমেদুল আলম রাসেল, জাহাঙ্গীর আলম দুলাল, কাউন্সিলর আবুল হাশেম, আনোয়ার হোসেন লিপু, শাহেদ বক্স, সামশুল হক, মনজুর আলম চৌধুরী মঞ্জু ও শিহাব উদ্দিন মুবিন প্রমুখ।

জয়নিউজ/কাউছার/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...