বাজারজুড়ে করোনার আগুন

0

করোনা ভাইরাস আতঙ্ককে পুঁজি করে দুই দিনের ব্যবধানে অস্থির হয়ে উঠেছে নগরের বাজারগুলো। হু হু করে বাড়তে শুরু করেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। এদিকে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় বাজার থেকে ক্রেতারা যত তাড়াতাড়ি পারছেন একটু বাড়তি কেনাকাটা করে ঘরে ফিরছেন। আর এ সুযোগে অসাধু ব্যবসায়ীরাও ইচ্ছেমত পকেট কাটছেন ক্রেতাদের।

শুক্রবার (২০ মার্চ) নগরের রিয়াজউদ্দিন বাজার, কাজীর দেউড়ি বাজার, চকবাজার, দেওয়ান বাজার ঘুরে এসব তথ্য পাওয়া যায়।

বাজারে প্রতিকেজি  পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ২০ থেকে ২৫ টাকা । গত সপ্তাহে প্রতিকেজি ছিল ৪০ থেকে ৪৫ টাকা। পেঁয়াজের সঙ্গে আলুর দামও বেড়েছে।  বাজারে গত সপ্তাহে প্রতিকেজি ছিল ২০ থেকে ২২ টাকা । কিন্তু এ সপ্তহে প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা করে।

পেঁয়াজের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ২০টাকা বেড়ে রসুন  ১৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। সয়াবিন তেল প্রতি লিটারে ৫ থেকে ১০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৯৭ টাকায়। বাজারে বস্তা প্রতি চিনির দাম বেড়েছে ৩০৮ টাকা। সেই হিসেবে বাজারে প্রতি কেজি চিনির দাম বেড়েছে ৭ থেকে ১০ টাকা। এদিকে প্রতি কেজি চিড়া ৫০ টাকায়, ছোলার বিক্রি হচ্ছে  ৬০ থেকে ৭০ টাকায়।

চাল বস্তা প্রতি ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা  দাম বেড়েছে ।  প্রতিবস্তা চিনিগুড়া চাল বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৫ হাজার  টাকা, মিনিকেট (নতুন) চাল বিক্রি হচ্ছে ২ হাজার ৪৫০ টাকা, মিনিকেট (পুরানো) ২ হাজার ৫০০ টাকায়

সবজির মধ্যে সব সবজির দাম ৫ থেকে বেড়েছে ১০টাকা। পেঁপে ৪০ টাকা, বেগুন ৪৫ টাকা, লাউ ৪০ টাকা, টমেটো ৩০ টাকা, বরবটির ৬০ টাকা, ফুলকপি ৪৫ টাকা, শিম ৪৫ টাকা, কাঁচামরিচ ৫৫ টাকা, পটল ৪০ থেকে ৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে শসা ৪৫ টাকা, মুলা ৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

প্রতি আঁটি লালশাক ১৫ টাকা, পালংশাক ২০ ও  মুলাশাক ১৫  টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

গত সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে মাছের দাম। রুই প্রতি কেজি ২৫০ থেকে ২৭০ টাকা, কাতাল ৩০০ থেকে ৩১০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা, ইলিশ ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা, চিংড়ি ৬৫০ থেকে ৭০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

তবে মাংসের বাজার আছে যথারীতি আগের মতোই। ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১২৫ থেকে ১৩০ টাকা,  কক মুরগি ২৩০ থেকে ২৪০ টাকা, লেয়ার ২০০ টাকা, দেশি মুরগি ৩৫০ থেকে ৩৭০ টাকায় কেজি। গরুর মাংস ৫৫০ থেকে ৫৭০ টাকা এবং খাসির মাংস ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকায়।

এদিকে বাজারে সব ধরনের এন্টিসেপটিক সাবান, হ্যান্ডওয়াশ ও ডিটারজেন্টের অত্যধিক চাহিদা বেড়ে গেছে। এতে প্রায় সব দোকানে সর্বোচ্চ খুচরা মূ্ল্যে বিক্রি হচ্ছে এসব পণ্য।

জয়নিউজ/পিডি

 

সরাসরি আপনার ডিভাইসে নিউজ আপডেট পান, এখনই সাবস্ক্রাইব করুন।

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...