৫০ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তার আওতায় আনা হয়েছে: ড. হাছান

0

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, রাঙ্গুনিয়ার ৫০ হাজার পরিবারকে সরকারি-বেসরকারি খাদ্য সহায়তা ও সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আওতায় আনা হয়েছে।

সরকারি সহায়তার পাশাপাশি রাঙ্গুনিয়াতে আমার বাবা-মার নামে প্রতিষ্ঠিত আমাদের পারিবারিক প্রতিষ্ঠান এনএনকে ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে আমরা ত্রাণ কার্যক্রম শুরু করেছি। ইতোমধ্যে হাজার হাজার মানুষকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতেও এ ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এনএনকে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছেন তথ্যমন্ত্রী

শুক্রবার (৮ মে) দুপুরে রাঙ্গুনিয়ার মজুমদারখীল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তথ্যমন্ত্রীর পারিবারিক প্রতিষ্ঠান এনএনকে ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট সঙ্কটে পড়া কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এনএনকে ফাউন্ডেশনের স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়ন প্রতিনিধি মো. ইদ্রিছ মেম্বারের সভাপতিত্বে ও নির্বনীতোষ সাহা ভাস্করের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার মেয়র মো. শাহজাহান সিকদার।

এসময় ড. হাছান মাহমুদ বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে বৈশ্বিক এ সঙ্কটে বাংলাদেশের এক তৃতীয়াংশের বেশি মানুষকে সরকারি সহায়তার আওতায় আনা হয়েছে। এরবাইরেও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য, বিভিন্ন নেতাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিরা ইতোমধ্যে ৯০ লাখের বেশি মানুষকে ত্রাণ সহায়তা পৌঁছৈ দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৭ মে) আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি আরো বলেন, ঈদের আগে এক কোটিরও বেশি মানুষকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এবং আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্যসহ বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি ও নেতারা ত্রাণ পৌঁছে দিবে।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ নির্বাচনি এলাকার মানুষদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আপনারা আমাকে বারবার নির্বাচিত করে সেবা করার সুযোগ করে দিয়েছেন। আমি আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করি, আপনাদের দোয়া চাই, আমি যেন সবসময় আপনাদের পাশে থাকতে পারি। আপনাদের কোনো অভাব অভিযোগ অসুবিধা থাকলে প্রশাসনকে অথবা স্থানীয় নেতাদের জানাবেন। আমরা আপনাদের পাশে থাকবো।

অনুষ্ঠানে পৌরসভার মেয়র শাহজাহান সিকদার বলেন, তথ্যমন্ত্রীর ব্যক্তিগত উদ্যোগে পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে এনএনকে ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্যায়ের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ চলছে এখন। এপর্যন্ত রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ১৫ ইউনিয়ন ও পৌরসভা এলাকায় প্রায় ১২ হাজার পরিবারে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। ইউনিয়ন পর্যায়ে এসব ত্রাণসামগ্রী নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে বিতরণ করা হচ্ছে। করোনার কারণে সৃষ্ট সঙ্কটে রাঙ্গুনিয়ার মানুষের জন্য তথ্যমন্ত্রীর খাদ্যসামগ্রী বিতরণ পুরো রমজান মাস জুড়ে অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবদুল মোনাফ সিকদার, সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক জসিম উদ্দিন তালুকদার, দপ্তর সম্পাদক আবু তাহের, সমাজকল্যাণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান মো. নুরুল্লাহ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বানীতোষ সাহা ভাস্কর ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন রিয়াজ প্রমুখ।

জয়নিউজ/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...