রিয়াদ-ইমরুলে বাংলাদেশের ২৪৯

0

খুলনা থেকে ঢাকা, ঢাকা থেকে দুবাই, দুবাই থেকে আবুধাবির মাঠে ইমরুল কায়েসের শরীর-মনে আজ সম্ভবত ঐশ্বরিক শক্তি ভর করেছিলো। দীর্ঘ ভ্রমণের ক্লান্তি সঙ্গী করে নতুন তপ্ত পরিবেশে প্রবল মানসিকতা আর পাহাড়সম দৃঢ়তায় মাহমুদউল্লাহর সঙ্গী হয়ে টেনে দাঁড় করালেন বিধ্বস্ত দলের স্কোরবোর্ড।

বাঁচা-মরার ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা বাজেই করেছিলো খাদের কিনারে চলে যাওয়া বাংলাদেশ। দলীয় ৮৭ রানে পাঁচ উইকেট নেই বাংলাদেশের। এই অবস্থা থেকে দলকে লড়াকু সংগ্রহের দিকে নিয়ে গেছে রিয়াদ-ইমরুল জুটি! রিয়াদের ৭৪ ও ইমরুল কায়েসের অপরাজিত ৭২ রানের ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৪৯।

৬ রানের ব্যবধানে লিটন, সাকিব ও মুশফিকের মতো তিন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে মহা বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। কিন্তু এরপর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ইমরুল কায়েসের ১২৮ রানের জুটিতে দলের সংগ্রহটা যা হলো তা নেহাৎ কম নয়। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে ওয়ানডেতে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ইমরুল কায়েসের আজকের জুটিই সর্বোচ্চ রানের জুটি।

বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১৬ রানে প্রথম উইকেট হারায়। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে আফতাব আলমের বলে রহমত শাহর হাতে ক্যাচ হন নাজমুল হোসেন শান্ত। ১৮ বল খেলে ছয় রান করেন তিনি। তিন ম্যাচে নাজমুলের রান ৭, ৭ ও আজ ৬! এরপর ষষ্ঠ ওভারে মুজিব উর রহমানের বলে এলবিডব্লিউ হন মোহাম্মদ মিঠুন। দুই বল খেলে এক রান করেন তিনি। বাংলাদেশের স্কোর তখন ২ উইকেটে ১৮।

প্রথম পাওয়ার প্লের ১০ ওভারে দুই উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ তুলেছে ৩৪ রান। এরপর লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম দারুণ খেলছিলেন। কিন্তু একই ওভারে সাজঘরে ফিরে গেলেন লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান। দলীয় ১৯তম ওভারের চতুর্থ বলে দারুণ খেলতে থাকা লিটন দাশকে ইহসানউল্লাহ’র ক্যাচ বানিয়ে ফেরত পাঠান রাশিদ খান। ৪৩ বলে ৩টি চারে ৪১ করেন লিটন। ওভারের শেষ বলে নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে নামা সাকিব আল হাসান কোন রান না করেই রান-আউটের শিকার হন।

সাকিবের পর যেন একই ভুল করলেন মুশফিকও। বিতর্কিত এক রান আউটে ফিরে যান মুশফিক। একের পর এক উইকেট হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের স্কোর তখন ৫ উইকেটে ৮৭। তারপর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ইমরুল কায়েসের ব্যাটে ২৫ ওভার ২ বলে ১০০ করেছে বাংলাদেশ।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ইমরুল কায়েসের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। দলীয় ৮৭ রানে বাংলাদেশের পঞ্চম উইকেটের পতন ঘটেছিল। এরপর থেকে এই দুই ব্যাটসম্যান দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে তারা দুজন ইতোমধ্যে শতরানের পার্টনারশিপ গড়েছেন। আবার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ তার ব্যক্তিগত অর্ধশত পূরণ করেছেন। ওয়ানডে ক্রিকেটে এটি তার ২০তম অর্ধশত।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ বাংলাদেশঃ ২৪৯/৭ (৫০ ওভার) ইমরুল ৭২*, রিয়াদ ৭৪, মাশরাফি ১০, লিটন ৪১, মুশফিক ৩৩, শান্ত ৬; রাশিদ ১/৪৬, মুজিব ১/৩৫, আফতাব ৩/৫৪

 

জয়নিউজ/শহীদ

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...