গলা টিপে দুই মেয়েকে হত্যার পর বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা বাবার

0

পটিয়ার কাশিয়াইশে নিজের দুই মেয়েকে গলা টিপে হত্যা করেছেন এক বাবা। পরে তিনি নিজেও বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা চালান।

বুধবার (১ জুলাই) ভোরে কাশিয়াইশের ভান্ডারগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো- ওই এলাকার মুকুন্দ বড়ুয়ার মেয়ে টুকু বড়ুয়া (১৫) ও নিশি বড়ুয়া (১০)। ইতোমধ্যেই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত শুরু করেছে।

৮ নম্বর ভান্ডারগাঁও ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. ইউসুফ জয়নিউজকে বলেন, আজ (বুধবার) ভোরে নিজের দুই মেয়েকে গলাটিপে হত্যার পর বাবা মুকুন্দ বড়ুয়া নিজেও বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। এমন খবর পেয়ে স্থানীয়রাসহ আমি ঘটনাস্থলে আসি। বর্তমানে পুলিশের  ওসিসহ একটি টিম ঘটনাস্থলে রয়েছেন। বাবা মুকুন্দ বড়ুয়া অজ্ঞান অবস্থায় আছেন। তার জ্ঞান ফিরলেই ঘটনাটির প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

তিনি আরো জানান, পাঁচ বছর আগে মুকুন্দ বড়ুয়ার স্ত্রী মারা যান। তারপর থেকে দুই মেয়েকে থাকতেন মুকুন্দ রড়ুয়া। বড় মেয়ে টুকু বড়ুয়া অষ্টম শ্রেণি ও ছোট মেয়ে নিশি বড়ুয়া পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন।

পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বোরহান উদ্দীন জানান বলেন, ভান্ডারগাঁও এলাকার মুকুন্দ বড়ুয়া নামে এক ব্যক্তি তার দুই মেয়েকে গলা টিপে হত্যার পর নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। তবে কি কারণে ঘটনাটি ঘটেছে তা এখনো জানা যায়নি। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কারণ জানা যাবে।

জয়নিউজ/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...