দেশের বাজারে রুট গ্রুপের করোনা কিলার স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী

0

দেশের বাজারে করোনা কিলার ফেব্রিকস ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী নিয়ে এসেছে রুট গ্রুপ অব কোম্পানিজ ও সুইজারল্যান্ডভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠান। শুক্রবার (৩ জুলাই) বিকেল ৩টায় জুম অনলাইন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের টেক্সটাইল খাতের জন্য নতুন এ প্রযুক্তির উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, করোনা মহামারিতে এ ধরনের উদ্যোগ বাংলাদেশের টেক্সটাইল ও অ্যাপারেল ইন্ডাস্ট্রিকে বিশ্ব দরবারে প্রশংসিত করবে। এ স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ব্যক্তিগত ব্যবহার ছাড়াও হাসপাতালেও ব্যবহার হতে পারে।

অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক কামরুল হাসান খান, বিএসএমএমইউ-এর সাবেক উপউপাচার্য অধ্যাপক শহীদুল্লাহ সিকদার, আইইডিসিআরের রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগের অধ্যাপক ডা. বে-নজীর আহমেদ, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিমেল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিভাসু) উপাচার্য অধ্যাপক ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ, সিভাসুর অধ্যাপক ড. এএমএএম জুনায়েদ সিদ্দিকী, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. লেলিন চৌধুরী, জনতা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুস সালাম আজাদ, দি এশিয়ান এইজ পত্রিকার বোর্ড অব এডিটরস-এর চেয়ারম্যান শোয়েব চৌধুরী, রুট গ্রুপ অব কোম্পানিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. রাজ্জাকুল হোসেন টুটুল এবং রুট গ্রুপ অব কোম্পানিজের সিইও বাশার খান।

রুট গ্রুপের মিডিয়া এডভাইজার সাংবাদিক সেলিম ওমরাও খানের সঞ্চালনায় এতে সংযুক্ত ছিলেন বিদেশি ব্র্যান্ড কোম্পানির কয়েকজন ক্রেতা।

বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনা মহামারি প্রতিরোধে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে টেক্সটাইল খাতের সুইস উদ্ভাবক প্রতিষ্ঠানটির করোনা কিলার স্বল্পতম সময়ের মধ্যে করোনাভাইরাসসহ বেশিরভাগ ক্ষতিকর ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে দিতে পারে। এছাড়া করোনা কিলার সমৃদ্ধ টেক্সটাইলস অ্যান্ড অ্যাপারেলসে ব্যবহারযোগ্য কাপড়ে সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে সক্ষম বলে জানানো হয়।

উন্নত সিলভার এবং ভ্যাসিকাল প্রযুক্তির বিশেষ মিশ্রণে তৈরি অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল করোনা কিলার মাত্র দুই মিনিটে ৯৯.৯৯% ভাইরাসকে ধ্বংস করে। ২০ বার ধোঁয়ার পরেও ট্রিটেড টেক্সটাইল সামগ্রীতে করোনা কিলার কার্যকর থাকবে।

করোনা কিলার সমৃদ্ধ টেক্সটাইলস ও অ্যাপারেলসে ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়ার সংস্পর্শে এলে সেগুলোকে ধ্বংস করে দেয়। করোনা কিলার স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী যেমন- পিপিই, ফেইস মাস্ক, আইসোলেশন গাউন, ওভারঅল, সু-কাভার, ডেনিম, নন-ডেনিম, প্যান্ট, শার্ট, লেডিস ওয়ার, টি-শার্ট, পলো শার্ট, হোম টেক্সটাইল, হাসপাতালের ইউনিফর্ম এবং এয়ার ফিল্টারে ব্যবহার করা যায়।

বাংলাদেশে এ নিয়ে গবেষণা করেন সিভাসুর অধ্যাপক ড. এএমএএম জুনায়েদ সিদ্দিকী। ড. সিদ্দিকী তাঁর গবেষণায় পাওয়া ফলাফল সংক্ষেপে তুলে ধরেন।

রুট গ্রুপ অব কোম্পানিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. রাজ্জাকুল হোসেন টুটুল বলেন, করোনা মহামারিতে বিপন্ন, দিশেহারা ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোই আমাদের উদ্দেশ্য। স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহার করে দেশের মানুষ যাতে তাদের জীবন-জীবিকার চাকা সচল রাখতে পারে সেজন্য আমরা এ করোনা কিলার নিয়ে এসেছি।

জয়নিউজ/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...