বহিষ্কারের আদেশ পাল্টালো ৩০ মিনিটেই!

0

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সংস্কৃত বিভাগের দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযোগে সাময়িক বহিষ্কারের আদেশ দেয়ার ৩০ মিনিটের মধ্যেই পরিবর্তন করা হয়েছে সিদ্ধান্ত।

বৃহস্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার শামসুল আলম স্বাক্ষরিত বহিষ্কারাদেশের একটি চিঠি ইস্যু করা হয়। ইস্যুর ঠিক আধা ঘন্টা পরেই এই আদেশ নাটকীয়ভাবে পরিবর্তন করে সংস্কৃত বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সুপ্তিকণা মজুমদার ও সহকারী অধ্যাপক শিপক কৃষ্ণ দেব নাথকে বরখাস্তের আদেশ ফিরিয়ে নেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে এম নূর আহমেদ জানান, আধা ঘন্টার মধ্যেই  দুই শিক্ষকের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দেয়া হলেও প্রাথমিক তদন্তে অপরাধ গুরুতর নয় বিবেচনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তা প্রত্যাহার করে নেয়। পাশাপাশি অধিকতর তদন্তের জন্যে আরেকটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোঃ শামসুল আলম স্বাক্ষরিত বহিষ্কারাদেশে উল্লেখ করা হয়, পরীক্ষার কাজে অনিয়মের বিষয়ে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রদত্ত প্রতিবেদন ও ৫১৬তম সিন্ডিকেট সভার ৮নং সিদ্ধান্তে উপাচার্যের প্রদত্ত ক্ষমতাবলে সংস্কৃত বিভাগের দুই শিক্ষককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। চবি কর্মচারী (দক্ষতা ও শৃঙ্খল) সংবিধির ১৫(বি) ধারানুসারে এই বহিষ্কারাদেশ দেয়া হয়।

বহিষ্কারাদেশের ব্যাপারে অভিযুক্ত ড. সুপ্তিকণা মজুমদার জয়নিউজকে বলেন, ২০১৩ সালের এক পরীক্ষায় একটা শিরোনাম ভুল হয়েছিল। ওই ব্যাপারে অভিযোগ করেছিলেন সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র। মনগড়া অভিযোগেই চার বছর পর শাস্তির একটা ব্যবস্থা করা হয়েছিল। শুনেছি প্রত্যাহার করা হয়েছে, কেন হয়েছে জানি না।

বহিষ্কারাদেশের ব্যাপারে অভিযুক্ত অন্য শিক্ষক শিপক কৃষ্ণ দেব নাথের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ ব্যাপারে প্রতিবেদকের সাথে কথা বলতে রাজি হননি।

এদিকে ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোঃ শামসুল আলম জয়নিউজকে জানান, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নির্দেশ দেয়ায় আমি বহিষ্কার আদেশে স্বাক্ষর করি। পরে কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই আমি ওই আদেশ প্রত্যাহার করি।

এ ব্যাপারে চবি উপাচার্য ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও সংযোগ পাওয়া যায়নি।

জয়নিউজ/শহীদ/জুলফিকার

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...