নগরবাসীর ভোগান্তি লাঘবে শতভাগ উজাড় করে দেব: চসিক প্রশাসক

0

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) নবনিযুক্ত প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন বলেছেন, নগরবাসীর ভোগান্তি লাঘবে শতভাগ উজাড় করে দেবো।

শনিবার (৮ জুলাই) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলনায়তনে চট্টগ্রাম জার্নালিস্ট ফোরামের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন।

চসিক প্রশাসক সুজন বলেন, নগরবসীর ভোগান্তি লাঘবে যখন যা-কিছু প্রয়োজন আমি তা-ই করবো। আমি একজন রাজনীতিক হিসেবে প্রায় অর্ধ শতাব্দীকাল ধরে মানুষের সুখ-দুঃখের সাথী হিসেবে আছি। আমি আগেও রাস্তায় ছিলাম, এখনো আছি এবং মৃত্যু পর্যন্ত থাকবো।

তিনি আরো বলেন, চসিকের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রশাসক হিসেবে নিজস্ব লোকবল ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মধুর সম্পর্ক গড়ে তুলে তাদেরকে সঙ্গে নিয়ে আমি রাস্তায় থাকবো, মানুষের পাশাপাশি থাকবো।

প্রশাসক বলেন, আমি চসিকের যাদেরকে নিয়ে মাঠে থাকবো তাদের তিল পরিমাণ বিচ্যুতি, অনিয়ম বা নয়-ছয় করার প্রবণতাকে বরদাস্ত করবো না। যারা যোগ্য, দক্ষ ও আন্তরিক তাদেরকে বুকে টেনে নেব। কারণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার ওপর যে আস্থা রেখেছেন আমি তার প্রতিদান দিতে চাই। তাই গণমাধ্যমসহ সবার সহযোগিতায় সরকার, চসিকসহ সকল সেবা সংস্থার ভাবমূর্তিকে উজ্জ্বল করতে প্রত্যয়ী।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত সাংবাদিকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দৈনিক ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, চট্টগ্রাম জার্নালিস্ট ফোরাম সভাপতি সাহেদ ছিদ্দীকি, সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ নোমান, সাবেক সভাপতি মোস্তফা কামাল, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ ও দীপ্ত টেলিভিশনের হেড অব দ্য নিউজ ইব্রাহীম আজাদ।

এর আগে চসিক প্রশাসক সুজন সকালে ধানমন্ডীর ৩২ নম্বর সড়কে বাঙালির স্বাধীন জাতিসত্তা নির্মাণের স্মৃতিময় সাক্ষী ৩২নং ধানমন্ডীর বঙ্গবন্ধু ভবনে যান। সেখানে স্থাপিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়ে দাঁড়িয়ে ১ মিনিট নীরবতা পালন করেন এবং বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্য এবং ১৫ আগস্ট ট্রাজেডিতে শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন।

জয়নিউজ/কাউছার/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...