ইলিনয়তে বিশেষ খেতাব ড. আলী রিয়াজের

0

যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় স্টেট ইউনিভার্সিটির টমাস ই. ইমারমান অধ্যাপক হিসেবে নাম ঘোষণা করা হয়েছে বাংলাদেশি অধ্যাপক ড. আলী রিয়াজের। তিনি এই ক্যাটাগরির উদ্বোধনী অধ্যাপক। ২০১৮ থেকে ২০২০ সাল মেয়াদে দায়িত্ব পালন করবেন আলী রিয়াজ।

এরশাদবিরোধী আন্দোলনের সাবেক বামপন্থি ছাত্র নেতা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক অধ্যাপক রিয়াজ বর্তমানে বসবাস করছেন যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয়ের নরমাল শহরে। বাংলাদেশের মূলধারার গণমাধ্যমে সমাজ, রাজনীতি, ইসলামি রাজনীতি, সহিংসতা এবং আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক ঘটনাপ্রবাহের ওপর বিশ্লেষণমূলক  বক্তব্য নিয়ে সদা সক্রিয় এই বুদ্ধিজীবী।

প্রসঙ্গত, দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতি এবং রাজনৈতিক ইসলাম বিষয়ের বিশেষজ্ঞ হিসেবে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে তাঁর স্বীকৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে ইলিনয় স্টেট ইউনিভার্সিটি ২০১২ সালে ডক্টর রিয়াজ কে ‘ইউনিভার্সিটি প্রফেসর’ পদে ভূষিত করে।

ইলিনয় স্টেট ইউনভার্সিটির ওয়েবসাইটে জানানো হয়, অধ্যাপক রিয়াজের এই দায়িত্ব বাংলাদেশের মাদ্রাসা শিক্ষা নিয়ে গবেষণার ক্ষেত্রে তাকে সহায়তা করবে। এ বিষয়ে ইলিনয় স্টেট ইউনভার্সিটির সরকার ও রাজনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান টি ওয়াই ওয়াং বলেন, আলী রিয়াজের কাজ ইসলামিক শিক্ষা ও সমাজ নিয়ে ক্রমবর্ধমান জ্ঞান অর্জনকারীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

গত জুলাই মাসে এক সফরে এসে ঢাকায় এক গণবক্তৃতায় বাংলাদেশের রাজনীতিতে ইসলামপন্থিদের প্রভাব নিয়ে আলোচনায় তিনি বলেন, “বাংলাদেশের ইসলামপন্থি রাজনীতি দুই ভাগে বিভক্ত। তুলনামূলকভাবে রক্ষণশীল ও সংস্কারপন্থি। গত কয়েক বছরে তুলনামূলকভাবে সংস্কারপন্থি ধারা দুর্বল হয়েছে।

অধ্যাপক আলী রিয়াজের জন্ম ৩ এপ্রিল ১৯৫৮ সাল, ঢাকায়। তিনি ১৯৮৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের পড়াশুনা শেষ করেন। এরপর তিনি যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যোগাযোগ এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞানে মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন এবং ১৯৯৩ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে পিএইচ-ডি লাভ করেন। ইলিনয় স্টেট ইউনিভার্সিটিতে যোগ দেওয়ার আগে অধ্যাপক রিয়াজ  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ব্রিটেনের লিংকন বিশ্ববিদ্যালয় এবং যুক্তরাষ্ট্রের ক্ল্যাফলিন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন। এছাড়া তিনি লন্ডনে বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিসে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন ১৯৯৫ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত।

ইংরেজিতে তাঁর প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা দশটি। এর মধ্যে রয়েছে– ‘পলিটিক্যাল ইসলাম এন্ড গভর্নেন্স ইন বাংলাদেশ’ (২০১০), ‘ফেইথফুল এডুকেশন : মাদ্রাসাজ ইন সাউথ এশিয়া’ (২০০৮) এবং ‘গড উইলিং– দি পলিটিক্স অব ইসলামিজম ইন বাংলাদেশ’ (২০০৪)। বাংলায়ও তাঁর অনেক বই প্রকাশিত হয়েছে। বিশেষ করে তাঁর লিখিত ‘ভয়ের সংস্কৃতি : বাংলাদেশে আতঙ্ক ও সন্ত্রাসের রাজনৈতিক অর্থনীতি’ বইটি বাঙালি পাঠক ও সুধি সমাজে প্রশংসিত এবং বহুল প্রচারিত।

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...