সুপার ওভারের রেকর্ড

0

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) ইতিহাসে সুপার ওভারের রেকর্ড হয়েছে। রোববার (১৮ অক্টোবর) দিনের দুটি ম্যাচই নিষ্পত্তি হয়েছে সুপার ওভারে!

দিনের শেষ ম্যাচটি নিষ্পত্তি হয়েছে আবার দুটি সুপার ওভারে! দুই ম্যাচের দুটিই সুপার ওভার হওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম। আবার একই দিনে তিনটি সুপার ওভার দেখার সুযোগও এই প্রথম পেলেন ক্রিকেটপ্রেমীরা!

রোববার দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় কলকাতা নাইট রাইডার্স ও সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬৩ রান সংগ্রহ করে কলকাতা। জবাবে হায়দ্রাবাদেরও ২০ ওভারে সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৬৩!

তবে সুপার ওভারে হায়দ্রাবাদ সংগ্রহ করে মাত্র ২ রান। লুকি ফারগুসনের আগুনঝরা ওভারের প্রথম বলে ডেভিড ওয়ার্নার এবং তৃতীয় বলে সামাদ আউট হন। এর আগে দ্বিতীয় বলটিতে সামাদ দুই রান নেন।

হেসেখেলে জয়ের সুপার ওভারটিই টেনশনে চলে যায় যখন রশিদ খানের প্রথম তিন বলে আসে মাত্র এক রান! তবে চতুর্থ বলে কলকাতা দুই রান লেগ বাই হিসেবে উপহার পেলে সব নাটকীয়তার অবসান হয়।

পরের ম্যাচটি ছিল আরও নাটকীয়। এ ম্যাচে একটি নয়, হয়েছে দু-দুটি সুপার ওভার! ম্যাচে মুখোমুখি হয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। নির্ধারিত ২০ ওভারে উভয়ের স্কোর ৬ উইকেটে ১৭৬।

প্রথম সুপার ওভারে জাসপ্রিত বুমরার দুর্দান্ত গতির বিপরীতে নিকোলাস পুরানের উইকেট হারিয়ে ৫ রানের বেশি করতে পারেনি পাঞ্জাব। মনে হচ্ছিল সহজেই সুপার ওভার জিতে নিবে মুম্বাই। কিন্তু তাতে বাধা হয়ে দাঁড়ান মোহাম্মাদ শামি। তার সুইংয়ের বিরুদ্ধে মুম্বাইও ৫ রানের বেশি করতে পারেনি।

এবার দ্বিতীয় সুপার ওভারের পালা। প্রথমে ব্যাট করা মুম্বাই ক্রিস জর্ডানের সেই ওভারে তোলে ১১ রান। আর ব্যাট করতে নেমে অনায়াসেই এই রান টপকে যায় পাঞ্জাব। এজন্য ক্রিস গেইল আর মায়াঙ্ক আগারওয়াল সময় নেন মাত্র ৪ বল। বোল্টের প্রথম বলেই ছক্কা মারেন গেইল, এরপর সিঙ্গেল। আর পরের দুই বলে দুটি চার মারেন আগারওয়াল।

সবমিলিয়ে সুপার ওভারের রেকর্ডের সাক্ষী হয়ে থাকল বিশ্ববাসী। দুই ম্যাচের দুটিই সুপার ওভার, এক দিনে তিনটি, একই ম্যাচে দুটি— এ যেন সুপার ওভারের দিন।

জয়নিউজ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...