চবিতে ছিনতাই করতে যাওয়ার কথা তাদের!

0

শাটল ট্রেনে চেপে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছিনতাই করতে যাওয়ার কথা তাদের। শেষ ট্রেন মিস হয়ে যায়। এরপরের ট্রেন একেবারে বিকেলে। তাই ‘যাত্রাভঙ্গ’ হয় তাদের। চলে আসে তারা সিআরবি শিরীষতলায়। ফাঁদ পেতে সিটি কলেজের এক ছাত্রের কাছ থেকে মোবাইল ছিনিয়ে নেয় আট জনের এ ছিনতাইকারীর দল। তবে শেষ রক্ষা হয়নি তাদের। ছিনতাই হওয়া ছাত্রের বন্ধুরা দল পাকিয়ে আটক করে আট জনের একজনকে। তাকে সোপর্দ করে কোতোয়ালী থানা পুলিশের হাতে। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাকি সাতজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন মাহমুদুর রহমান মাহিম (১৮), সাজ্জাদ হোসেন হৃদয় (১৮), ইউসুফ (২০), গোলাম হাসান (১৮), ইয়ামিন হোসেন (১৯), মেহেদী হাসান রবিন (১৯), আহাদুল ইসলাম রায়হান (২০) এবং হাবিবুর রহমান হৃদয় (২০)।

কোতোয়ালী থানার ওসি মো. মহসিন জয়নিউজকে জানান, সোমবার (১ অক্টোবর) চট্টগ্রামের সিআরবি এলাকায় আরাফাতুল রহমান শাহীন নামের ছাত্রকে ছিনতাইকারীরা ছুরি দেখিয়ে মোবাইল ছিনতাই করে পালিয়ে যায়। সিটি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র শাহীন বন্ধুদের সহায়তায় কৌশলে ছিনতাইকারীকে আটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। পরে পুলিশ তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে বাকি সাত জনকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে ছিনতাই হওয়া মোবাইল ও একটি ছুরি উদ্ধার করা হয়।

ওসি মহসিন আরো জানান, সোমবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের ছিনতাই করতে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায় তারা। কিন্তু শাটল ট্রেন ধরতে ব্যর্থ হওয়ায় ক্যাম্পাসে না গিয়ে তারা সিআরবি এলাকায় চলে যায়। সেখানে শাহীনের কাছ থেকে মোবাইল ছিনতাই করে।

কোতোয়ালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান জয়নিউজকে বলেন, তারা নগরের সিআরবি সাত রাস্তা মোড়, শিরীষতলা, হল টোয়েন্টিফোর, স্টেডিয়ামের আশপাশের এলাকা ও ডিসি হিল এলাকায় আড্ডা দেয়। এসব এলাকায় সন্ধ্যা পর্যন্ত স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা থাকেন। কারও হাতে স্মার্টফোন দেখলে সুযোগ খুঁজতে থাকে তারা। এ সময় ‘মুরগী মুরগী’বলে উচ্চারণ করে গ্রুপের সদস্যদের প্রস্তুতি নিতে সংকেত দেয় তারা।

কামরুজ্জামান আরো বলেন, ছিনতাইয়ের আগে তারা কিছু কৌশল ব্যবহার করে। প্রথমে কোন ছাত্রকে টার্গেট করে ২-৩ জন মিলে ঘিরে ধরে। তার মোবাইল ফোন চেক করা শুরু করে। একপর্যায়ে বলে, তোর মোবাইলে অমুক মেয়ের ছবি অথবা ভিডিও ধারণ করা হয়েছে। এ বলে অপবাদ দিয়ে মারধর শুরু করে। এই কাহিনীর ভেতরেই তার কাছ থেকে মোবাইলটি ছিনিয়ে নেয়। ঘটনা শেষ না হতেই উপস্থিত হন আরো ৫-৬ জন। এরপর দল বেঁধে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে তারা। গ্রেফতার হওয়া আট ছিনতাইকারীর বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের শিকার ছাত্র শামীম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন বলে জানান পুলিশ পরিদর্শক কামরুজ্জামান।

 

জয়নিউজ/ফরহান অভি/ফয়সাল/জুলফিকার

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...