পিছিয়ে পড়া পার্বত্য চট্টগ্রামকে আলোকিত করেছে শেখ হাসিনা

0

‘পাহাড়ের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর ভাগ্য বদলে কাজ করছে সরকার। পিছিয়ে পড়া পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলকে অন্ধকার থেকে আলোকিত করেছে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’

রোববার (২২ নভেম্বর) বান্দরবানের লামা উপজেলায় প্রায় আট কোটি টাকা ব্যয়ে ১৫টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্ধোধন হয়। ফাইতং বাজারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পার্বত্য জনপদে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই এগিয়েছে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ, পর্যটন ও কৃষিসহ সর্বক্ষেত্রে। আত্মসামাজিকভাবেও পার্বত্যবাসী আগের চেয়ে বহুগুনে এগিয়েছে।

এসময় বান্দরবানের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. লুৎফর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আছাদুজ্জামান, জেলা পরিষদ সদস্য লক্ষী পদ দাশ, লামা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল, লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রেজা রশিদ, লামা পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম, এলজিইডির সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী মো. জামাল উদ্দীন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের বান্দরবান ইউনিট নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন ইয়াছির আরাফাত প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উন্নয়ন প্রকল্পগুলো হচ্ছে— স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের (এলজিইডি) অর্থায়নে ৪ কোটি ৭২ লাখ ব্যয়ে বানিয়ারছড়া-গজালিয়া সড়ক প্রস্তকরণ, ফাইতং হেডম্যানপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ, খেদারবাধঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়নের বোর্ডের অর্থায়নে ১ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ব্যয়ে রাঙ্গাঝিরি জামে মসজিদ সংষ্কার, ফাইতং উচ্চ বিদ্যালয় শ্রেণি কক্ষ ও সীমানা দেওয়াল নির্মাণ, ভাজাপাড়া মসজিদ নির্মাণ, চিউপতলী ধর্মচচরণ ত্রিপুরা পাড়ায় বৌদ্ধ বিহার নির্মাণ, ধুইল্লাছড়ি আবদুল কাদের জামে মসজিদ নির্মাণ, কামাইজ্যাঝিরি ত্রিপুরাপাড়ায় কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ, চিউপতলী বাজারে যাত্রীছাউনী নির্মাণ এবং চিউপতলী শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদ অফিস নির্মাণ।

পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে ১ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে চিবাতলীপাড়া বৌদ্ধ বিহার, বঙ্গবন্ধু পরিষদের ভবন নির্মাণ, বড়ইতলী রাস্তার মাথা থেকে ফাইতং রাস্তার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্তকরণ, ফাইতং ইউপি রাস্তার মাথা থেকে মগনামা ও ফুলবাড়ি আরকান সড়ক পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ।

জয়নিউজ/শাহরিয়ার/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...