রাউজান পৌর নির্বাচন: মনোনয়নে মরিয়া আ.লীগ, কৌশলী বিএনপি

0

আসন্ন রাউজান পৌরসভার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এলাকায় হাট-বাজার  থেকে চায়ের দোকানে সাধারণ মানুষের মধ্যে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা । তবে সবচেয়ে বেশ আলোচিত হচ্ছে- কে হচ্ছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী?

এদিকে পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জমে ‍উঠেছে আওয়ামী লীগের রাজনীতি। দলের মনোনয়ন পেতে মরিয়া আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। সাধারণ মানুষ ও তৃণমূল কর্মীদের সমর্থন পেতে দিন-রাত মাঠে রয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

পৌর নির্বাচন ঘিরে যখন জমজমাট আওয়ামী লীগের রাজনীতি, তখন কৌশলী অবস্থান নিয়েছে বিএনপি। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা সরাসরি মাঠে না থাকলেও শোনা যাচ্ছে বেশ কয়েকজনের নাম। আড়ালে থেকেই ঘর গোছানোর এ প্রক্রিয়াটি বিএনপির একধরনের রাজনৈতিক কৌশল- বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত নির্বাচনে মেয়র পদে জয়ী হন উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক দেবাশীষ পালিত। এবারো দলের মনোনয়ন পেতে জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

দেবাশীষ পালিত জয়নিউজকে বলেন, মেয়র হওয়ার পর রাউজান পৌরসভার উন্নয়নে যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। আমার বিশ্বাস, গতবারের মতো এবারও আমি আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাবো। দলের মনোনয়ন পেলে ফের মেয়র হওয়ার ব্যাপারেও আমি আশাবাদী।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে দেবাশীষ পালিতের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবা হচ্ছে উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও পৌরসভার দ্বিতীয় প্যনেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজকে। রাজনৈতিক মতবিনিময় সভা থেকে শুরু করে বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে পৌরসভার প্রতিটি এলাকায় সাধারণ মানুষের সমর্থন পাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

জমির উদ্দিন পারভেজ জয়নিউজকে বলেন, আমি রাউজান পৌরসভার সাধারণ মানুষের দুঃসময়ে ও দলের দুঃসময়ে জীবনের ঝুকিঁ নিয়ে কাজ করেছি । রাউজানের সাধারণ মানুষ আমাকে ভালবাসে। আগামী নির্বাচনে মেয়র পদে দলের মনোনয়ন পেতে চাই।

এছাড়া আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন আরও কয়েকজন। এদের মধ্যে রয়েছেন সাবেক পৌর মেয়র প্রয়াত শফিকুল ইসলাম চৌধুরীর ছেলে সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানা ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য আ স ম ইয়াসিন মাহমুদ।

অপরদিকে নির্বাচন নিয়ে কৌশলী ভূমিকায় রয়েছে বিএনপি। এখন পর্যন্ত বিএনপি মাঠে সক্রিয় না থাকলেও মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন বেশ কয়েকজন। যাঁদের মধ্যে রয়েছেন রাউজান পৌর বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক আবু জাফর চৌধুরী, সাবেক মেয়র বিএনপি নেতা প্রয়াত কাজী আবদুল্লাহ আল হাসানের ছেলে কাজী সোহেল ও সেকান্দর হোসেন চৌধুরী।

এছাড়া জাতীয় পাটি থেকে সাবেক চেয়ারম্যান মেজবাহ উদ্দিন আকবর চৌধুরীও মেয়র পদে লড়তে পারেন বলে গুঞ্জন রয়েছে।

প্রসঙ্গত, ৪৪ বর্গকিলোমিটার আয়তনের রাউজান পৌরসভা গঠিত হয় ১৯৯৮ সালে। উপজেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সভাপতি প্রয়াত শফিকুল ইসলাম চৌধুরীকে পৌর প্রশাসক নিয়োগ দিয়ে এ পৌরসভার কার্যক্রম শুরু হয় ।

জয়নিউজ/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...