রক্তাক্ত রানাই মিরসরাই যুবলীগের সভাপতি

0

চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলা যুবলীগের ছয় সদস্যবিশিষ্ট আংশিক কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। রোববার (৬ ডিসেম্বর) এ কমিটির অনুমোদন দেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগ।

জেলা যুবলীগের সভাপতি এসএম আল মামুন ও সাধারণ সম্পাদক এসএম রাশেদুল আলম স্বাক্ষরিত কমিটিতে সভাপতি পদে মো. মাইনুল ইসলাম রানা ও সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ইব্রাহিম খলিল ভূঁইয়াকে।

এছাড়াও কমিটিতে সহসভাপতি করা হয়েছে তিন জনকে। তারা হলেন— শেখ আব্দুল আউয়াল তুহিন, মো. আশরাফুল কামাল মিঠু ও রাসেল ইকবাল চৌধুরীকে। কমিটির সভাপতি ও সহসভাপতির বাড়ি একই ইউনিয়নে। ৪ জনই ১৫নং ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা।

অন্যদিকে একমাত্র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন মো. ফরহাদ হোসেন। ফরহাদ সদ্য বিলুপ্ত হওয়া মিরসরাই উপজেলা ছাত্রলীগ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

আরও পড়ুন: স্লোগান দেওয়াকে কেন্দ্র করে মিরসরাই যুবলীগের দু’পক্ষে সংঘর্ষ

নবগঠিত কমিটির সভাপতি মাইনুল ইসলাম রানা ও সহসভাপতি আব্দুল আউয়াল তুহিন দু’জনই মিরসরাইয়ে সাম্প্রতিক সময়ে হামলার শিকার হয়েছেন। গত ১১ নভেম্বর মিরসরাই পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে আয়োজিত সমাবেশে মিছিল সহকারে যোগ দিতে গেলে প্রতিপক্ষের হামলায় রক্তাক্ত হন রানা। সেই রানাই হয়েছেন এ কমিটির সভাপতি।

এর কিছুদিন পর ১৯ নভেম্বর উত্তর জেলা ছাত্রলীগের আর্থিক লেনদেনের বিনিময়ে কমিটি অনুমোদন নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ায় হামলা হয় আব্দুল আউয়াল তুহিনের বাড়িতে। পরে তুহিনকে দেখতে গিয়ে হামলার শিকার হন মিরসরাইয়ের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন। সেই তুহিনকে ঘোষিত কমিটিতে সহসভাপতি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ নভেম্বর মীরসরাই উপজেলা যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলেও নেতৃত্ব নির্বাচন ছাড়াই শেষ হয় ওই সম্মেলন। এর আট দিন পর কমিটি অনুমোদন দিল জেলা যুবলীগ। আগামী তিন মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে নতুন কমিটির নেতাদের নির্দেশও দিয়েছে জেলা যুবলীগ।

জয়নিউজ/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...