মিয়ানমারের ক্ষমতা সেনাবাহিনীর দখলে, জরুরি অবস্থা জারি

0

মিয়ানমারে রাষ্ট্রপতি উইন মিন্ট ও ক্ষমতাসীন দলের প্রধান অং সান সু চিসহ দলের শীর্ষ কয়েকজন নেতাকে আটক করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। তাদের আটকের পর দেশটিতে এক বছরের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করে সেনাবাহিনী।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) ভোরে সেনাবাহিনীর অভিযানে তাদের আটক করা হয়। দলের বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতাকেও আটক করা হয়েছে।

ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) মুখপাত্র মায়ো নিউন্ট বলেন, অং সান সু চি, রাষ্ট্রপতি উইন মিন্ট এবং অন্যান্য শীর্ষ নেতাদের সোমবার ভোরে আটক করা হয়েছে। আমাদের ধরে নিতে হবে যে সেনা অভ্যুত্থান ঘটেছে।

তিনি আরো বলেন, আমি জনগণকে উত্তেজিত প্রতিক্রিয়া না দেখানোর আহ্বান জানাই। তারা যেন আইন অনুসারে প্রতিক্রিয়া জানায়।

বিবিসির দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সংবাদদাতা জানান, রাজধানী নাইপিদো এবং প্রধান শহর ইয়াঙ্গুনের রাস্তায় সৈন্যরা নেমে পড়েছে। নাইপিদোতে টেলিফোন ও ইন্টারনেট লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

সেনা সদস্যরা বেশ কয়েকটি অঞ্চলের মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করেছে বলে জানিয়েছেন তাদের পরিবারের সদস্যরা।

গত বছর নভেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে অং সান সুচির এনএলডি সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে। কিন্তু সেনাবাহিনী নির্বাচনে ব্যাপক জালিয়াতির অভিযোগ তোলে। সেনাবাহিনী নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) বসতে যাওয়া সংসদ অধিবেশন বাতিলের দাবি জানায়। এনিয়ে সেনাবাহিনী ও এনএলডির মধ্যে সংকট চলছিল।

জয়নিউজ/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...