চীনের এই মঠের সন্ন্যাসীরা উড়তে পারেন!

0

বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় চীনের মার্শাল আর্ট কুংফু। আর কুংফুর জন্য বিখ্যাত চীনের শাওলিনের বৌদ্ধমঠ। বিস্ময়কর ব্যাপার হলো, শাওলিনের এক বৌদ্ধমঠে ‘উড়তে’ পারেন বৌদ্ধ সন্ন্যাসীরা!

চীনের হেনান প্রদেশের সংস্যাং পাহাড়ের মাথায় রয়েছে বৃক্ষঘেরা এক বৌদ্ধমঠ। যার নাম শাওলিন বৌদ্ধমঠ। কুংফুর শিক্ষাকেন্দ্র হিসেবে এই মঠ খুব জনপ্রিয়। এখানকার বৌদ্ধ সন্ন্যাসীরা মঠের উপরে আকাশে ‘উড়েন’! যা দেখতে এখানে প্রতিনিয়ত ভিড় জমান প্রচুর পর্যটক।

তবে উড়ার বিষয়টার পুরোটাই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির খেলা। আধুনিক ওই বৌদ্ধমঠে উড়ন্ত সন্ন্যাসীদের দেখতে আলাদা প্রেক্ষাগৃহ রয়েছে, নাম শাওলিন ফ্লাইং মঙ্ক থিয়েটার। এর একটি নির্দিষ্ট প্রকোষ্ঠে বড় টারবাইন ঘুরিয়ে প্রচুর হাওয়া তৈরি করা হয়। যার চাপেই মূলত উড়ে যান সন্ন্যাসীরা।

শাওলিন ফ্লাইং মঙ্ক থিয়েটারটির নকশা করা হয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে। পুরো প্রেক্ষাগৃহই যেন পাহাড়ঘেরা গাছ। খোলা আকাশের নিচের এই প্রেক্ষাগৃহের মাঝে গাছের আকারের কাঁচ এবং স্টিল দিয়ে ঘেরা প্রকোষ্ঠ রয়েছে। এই প্রকোষ্ঠের মধ্যেই টারবাইন ঘুরিয়ে তৈরি করা হয় হাওয়া।

গাছের আকারের প্রকোষ্ঠ ছাড়া চারপাশজুড়ে স্টেডিয়াম। যেখানে বসে বৌদ্ধ সন্ন্যাসীদের আকাশে উড়ার দৃশ্য দেখতে পারেন দর্শক। তবে দর্শকরা টারবাইন দেখতে পাবেন না, শুধু শুনতে পাবেন এর ভয়ঙ্কর শব্দ।

সবচেয়ে মজার বিষয় হলো- শুধু কুংফু মাস্টারই নন, চাইলে পর্যটকেরাও উড়তে পারবেন এই মঠে! কখনো কখনো দর্শকদের জন্যও খুলে দেওয়া হয় এই প্রকোষ্ঠ।

জয়নিউজ

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...