দক্ষিণ এশিয়া এক ও অভিন্ন: ড. মশিউর

চবিতে আন্তর্জাতিক কনফারেন্স

0

দক্ষিণ এশিয়ার ‍উন্নয়ন এ অঞ্চলের দেশগুলোর আন্তসম্পর্কের উপর বেশিরভাগ নির্ভর করছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান।

রোববার (৭ অক্টোবর) চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসায় অনুষদ অডিটোরিয়ামে ‘রিথিংকিং ডেভেলপমেন্ট ইন সাউথ এশিয়া-২০১৮’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসায় অনুষদ অডিটোরিয়ামে কনফারেন্সটির আয়োজন করে চবি সমাজবিজ্ঞান গবেষণা ইনস্টিটিউট।

তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন রাষ্ট্রের যোগাযোগ, অবকাঠামো, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, পরিবেশ, পর্যটনসহ বিভিন্ন উন্নয়নে এক দেশ অন্য দেশের পরিপূরক হয়ে কাজ করছে। ভৌগলিক অবস্থান এবং এ অঞ্চলের মানুষের সৌহার্দ্যপূর্ণ মনোভাব দেশগুলোকে একই সামিয়ানার নিচে আনতে সহায়ক হবে।

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বিষয়ে মশিউর রহমান বলেন, দক্ষিণ এশিয়ায় জনসংখ্যাই এ অঞ্চলের জনশক্তি। পরিশ্রম করার মানসিকতা এ অঞ্চলের মানুষের মত অন্য কোথাও নেই। আবার জনশক্তির বেশির ভাগই তরুণ। তারুণ্যের উদ্দীপনা আমাদের উন্নয়নকে সমৃদ্ধ করবে।

তিনি বলেন, উন্নয়নকে শতভাগ পূর্ণতা দিতে দেশগুলোর আন্তসম্পর্ক মজবুত করার উপর জোর দিতে হবে। সাংস্কৃতিক আদান-প্রদান বৃদ্ধি করতে হবে। উন্নত দেশগুলোকে স্বল্পোন্নত ও উন্নয়নশীল রাষ্ট্রগুলোর প্রতি দায়িত্ববান হতে হবে।

কনফারেন্সে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমাজবিজ্ঞান গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান। এছাড়া সম্মানিত অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার এবং মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন’র নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম।

কনফারেন্সে আমেরিকা, চীন, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, নেপালসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৫০ জন শিক্ষক ও গবেষক অংশ নিচ্ছেন। এ কনফারেন্সে ৯০টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হওয়ার কথা রয়েছে। কনফারেন্স আয়োজনে সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন।

জয়নিউজ/ফরহান অভি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...