৫ সপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু

0

দেশে গত পাঁচ সপ্তাহে করোনায় সর্বনিম্ন মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩৭ জন। গত ২৮ মার্চ এর চেয়ে কম ৩৫ জনের মৃত্যুর হয়েছিল। এরপর গত ৩৮ দিনে মৃত্যু এর নিচে নামেনি।

গতকাল মৃত্যু হয়েছিল ৪১ জনের। আজকের ৩৭ জন নিয়ে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেলেন ১১ হাজার ৮৩৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ৬৮২ জন। এখন পর্যন্ত শনাক্ত হলেন সাত লাখ ৭০ হাজার ৮৪২ জন। এসময়ে সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ১৭৮ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হলেন সাত লাখ ৪ হাজার ৩৪১ জন।

শুক্রবার (৭ মে) স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৯ দশমিক ৪৯ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৭ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯১ দশমিক ২৭ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৫৪ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৭ হাজার ৩২৯টি, আর নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৭ হাজার ১৩টি। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৫ লাখ ৯৯ হাজার ২৭৬টি। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৪১ লাখ ১৮ হাজার ১৫১টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৪ লাখ ৮১ হাজার ১২৫টি।

দেশে বর্তমানে ৪২৮টি পরীক্ষাগারে করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে জানিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, এরমধ্যে আরটি-পিসিআরের মাধ্যমে পরীক্ষা করা হচ্ছে ১২৭টি পরীক্ষাগারে, জিন এক্সপার্ট মেশিনের মাধ্যমে পরীক্ষা করা হচ্ছে ৩৫টি পরীক্ষাগারে এবং র‌্যাপিড অ্যান্টিজেনের মাধ্যমে পরীক্ষা করা হচ্ছে ২৬৬টি পরীক্ষাগারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৭১ জনের মধ্যে পুরুষ ২৩ জন, আর নারী ১৪ জন। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে পুরুষ মারা গেছেন আট হাজার ৫৮৯ জন এবং নারী তিন হাজার ২৪৪ জন।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে বয়স বিবেচনায় ষাটোর্ধ্ব রয়েছেন ২০ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে আছেন ৫ এবং ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে একজন আছেন।

এদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ১৯, চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জন, রাজশাহী ও সিলেট বিভাগের দুই জন করে এবং খুলনা, বরিশাল ও ময়মনসিংহ বিভাগের একজন করে।

৩৭ জনের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ২৮ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ০৮ জন এবং বাড়িতে একজন।

জয়নিউজ/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...