বাজেট: দাম বাড়বে ও কমবে যেসব পণ্যের

0

২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রস্তাবিত বাজেটে কিছু পণ্যের করহার কমানো হয়েছে। এতে এসব পণ্যের দাম কমতে পারে। উল্লেখ্য, বাজেটে শুল্ক-করের প্রস্তাব ঘোষণার পরই কার্যকর হয়।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বিকেল ৩টায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন শুরু করেন।

যেসব পণ্যের দাম বাড়বে
আমদানি করা বিলাসী পণ্য যেমন- বডি স্প্রে ও প্রসাধনী পণ্যে নতুন করে শুল্ক আরোপ হতে পারে। ফলে এসব পণ্যের দাম আরেক দফা বাড়বে।

অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের কারণে এবার বাড়বে সিগারেটসহ বিভিন্ন ধরনের তামাকজাত পণ্যের দাম। এসব পণ্যে স্ল্যাব অনুসারে শুল্ক আরোপ হচ্ছে।

দেশীয় পণ্য সুরক্ষায় শুল্ক আরোপের কারণে আমদানি করা স্মার্ট ফোনের দাম আরেক দফা বাড়বে। সেক্ষেত্রে সুবিধা পাবে দেশীয় কোম্পানিগুলো। নতুন বাজেটে আমদানি করা মাশরুমের ওপর শুল্ক আরোপ করা হবে, ফলে দাম বাড়বে।

চাষিদের সুরক্ষা দিতে গাজর, ক্যাপসিকাম, কাঁচামরিচ, টমেটো ও কমলা আমদানিতে ন্যূনতম শুল্কায়ন মূল্য আরোপের কথা বলা হয়েছে। এতে এসব পণ্য আমদানিতে কম দাম দেখিয়ে শুল্ক ফাঁকি দেওয়া যাবে না। যে কারণে দাম বাড়বে।

শিল্প লবণের ওপর কর বাড়ানো হয়েছে। এতদিন শিল্প লবণের নামে ভোজ্য লবণ আমদানি হত। এখন দুই লবণের করহারের সমন্বয় করা হয়েছে।

বিস্কুট ও সমজাতীয় সুগার কনফেকশনারির ওপর সম্পূরক শুল্ক ২০ থেকে বাড়িয়ে ৪৫ শতাংশ করা হয়েছে। এতে দাম অনেকটাই বাড়বে।

মাংস আমদানিতে শুল্ক হার বাড়ানো হয়েছে। বসানো হয়েছে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট। আবার ন্যূনতম শুল্কায়ন মূল্যের প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে বিদেশি মাংসের দাম বাড়বে।

বাজেটে যেসব পণ্যের দাম কমবে
পোল্ট্রি ফিড- বাজেটে রেয়াত সুবিধার প্রস্তাবের কারণে পোল্ট্রি ফিড বা মুরগির খাবারের দাম কমবে।

ক্যানসার ওষুধ- প্রস্তাবিত বাজেট অনুযায়ী রেয়াত সুবিধা বৃদ্ধি পাচ্ছে ক্যানসার প্রতিরোধক ওষুধের ক্ষেত্রে। তাই দাম কমবে এই ওষুধের।

দেশীয় টাইলস- আমদানি করা কাঁচামালের ওপর সম্পূরক শুল্ক তুলে দেওয়ার প্রস্তাব করা হচ্ছে বাজেটে। ফলে দেশীয় টাইলসের দাম কমবে।

মূলধনী যন্ত্রপাতি- মূলধনী যন্ত্রপাতিতেও শুল্ক কমানোর প্রস্তাব রা হচ্ছে বাজেটে। ফলে এসব যন্ত্রপাতির দাম কমবে।

দেশীয় মোটরসাইকেল ও ওয়াশিং মেশিন- দেশে তৈরি করার জন্য মোটরসাইকেলের যন্ত্রপাতি আমদানিতে কর রেয়াত সুবিধা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে প্রস্তাবিত বাজেটে। তাই কমবে দেশীয় মোটরসাইকেলের দাম।

কম্পিউটার- কম্পিউটার যন্ত্রাংশের আমদানিতে শুল্ক কমানোর কথা বলা হয়েছে। তাই দাম কমবে এসব যন্ত্রাংশের।

টেক্সটাইল যন্ত্রপাতি- রেয়াত সুবিধার আওতায় পড়েছে টেক্সটাইল পণ্যে। তাই দাম কমবে এসব পণ্যেরও।

করোনার কিট- সুরক্ষা সামগ্রীতে শুল্ক অব্যাহতি সুবিধা আগেই ছিল। এবার করোনা শনাক্তের আরটি-পিসিআর কিট তৈরির কাঁচামাল আমদানিতে শুল্ক ছাড় দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া এলপিজি সিলিন্ডার, কম্প্রেসর ও খেলনায় কর রেয়াত সুবিধা দেওয়ায় এসব পণ্যের দাম কমবে।

দাম কমার সম্ভাবনা
প্রস্তাবিত বাজেটে দেশীয় ইলেকট্রনিক্স পণ্যের ক্ষেত্রে (এসি-ফ্রিজ) ভ্যাট অব্যাহতি সুবিধা আগের মতোই বহাল থাকছে। ফলে দেশে উৎপাদিত ইলেকট্রনিক পণ্য কম দামে মিলতে পারে।

জাতীয় সংসদে ২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এটি মোট জিডিপির ১৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ। প্রস্তাবিত বাজেটে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ২ শতাংশ।

জয়নিউজ/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...