মর্ত্যে আসছেন দেবী দুর্গা, সাজছে ২৭৬ মণ্ডপ

0

শরৎ এলেই বাঙালির মননে লাগে রঙের ছোঁয়া । শরতের শুভ্র মেঘ আর কাশফুলের শোভা দেবী দুর্গার মর্ত্যের আগমনীর বার্তা বয়ে নিয়ে আসে প্রকৃতিতে। আর কিছুদিন পরেই হিন্দুধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজা। করোনার কারণে গতবছর সীমিত পরিসরে পূজা অনুষ্ঠিত হলেও এবার স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনেকটাই জাকজমকভাবে উৎসব পালন করা যাবে বলে মনে করছেন আয়োজকরা।

চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. টিপু শীল জয়দেব জানান, মহামারী করোনায় গতবছর পুরো পৃথিবী ছিলো বিপর্যস্ত কিন্তু এইবছর করোনা টিকা আসার কারণে মানুষের মাঝে অনেকটা স্বস্তি ফিরে এসেছে। তাই মহানগর পূজা পরিষদও চায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই বাঙালির প্রধান ধর্মীয় উৎসব আবার সবাইকে নিয়ে আনন্দের সাথে উদযাপন করতে। এইবার নগরের ১৬ থানার অধীনে ২৭৬টি পূজা মণ্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

এখন নগরের মৃৎশিল্পীরাও ব্যস্ত আরাধ্য দেবী দুর্গা প্রতিমা তৈরিতে। এর মধ্যে খড়, মাটি দিয়ে প্রতিমা তৈরির কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। তবে করোনাকালীন সময়ে প্রতিমার অর্ডার কম বলে জানিয়েছেন মৃৎশিল্পীরা। বিশেষ করে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যে প্রতিমা তৈরির অর্ডার আসতো এবার তেমন আসেনি।

হাজারীগলির মহামায়া স্টুডিও এর মৃৎশিল্পী উত্তম পাল জয়নিউজকে বলেন, এবারও অনেক কম প্রতিমা তৈরি করেছি। করোনার কারণে অনেক জায়গায় পূজা হচ্ছে না গত বছরের মতো। কাজ প্রায় শেষ। মাটির কাজ শেষ হবার পর শুকাতে হবে। পূজার কয়েক দিন আগে রঙ দেওয়া শুরু করবো।

এদিকে দেবীর আগমনে কোন কিছুর কমতি রাখতে চাইছে না আয়োজকরা। সাধ্যমতো উৎসবের রঙে রাঙাতে মণ্ডপগুলোতেও চলছে প্রস্তুতি।

বেটারীগলি সার্বজনীন পূজা উৎযাপন পরিষদের সহ সাধারণ সম্পাদক মিঠু দাশ জানান, করোনার কারণে গতবার দুর্গোৎসব ছিল আমেজহীন। এইবার স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবাই মিলে যাতে উৎসব আগের মতো পালন করতে পারি সেজন্য ইতোমধ্যে প্রস্তুতি চলছে। প্রতিমার অর্ডার করা হয়েছে। মন্ডপ তৈরির কাজ কিছুদিনের মধ্যে শুরু হবে।

আসছে ৬ অক্টোবর র্পূব আকাশে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে মহালয়ার মধ্যে দিয়ে এই মহা উৎসবের ক্ষণ গনণা শুরু হবে। ১১ অক্টোবর ষষ্ঠীপূজার মাধ্যমে শুরু হবে মূল আনুষ্ঠানিকতা।

চট্টগ্রাম মহানগর পূজা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হিল্লোল সেন উজ্জ্বল জয়নিউজকে বলেন, গতবার করোনার ব্যাপক প্রাদুর্ভাবের কারণে শুধুমাত্র পূজা-অর্চনা ছাড়া অন্য কোনো আয়োজন ছিলো না। কিন্তু এইবার সবকিছু যদি স্বাভাবিক থাকে তবে বিগত বছরগুলোর মতো এইবার সব ধরনের আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

জয়নিউজ/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...