কেএসআরএম এর সুনাম ক্ষুন্ন করতে বিশেষ মহল তৎপর

0

স্বনামধন্য একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুন্ন করার ষড়যন্ত্র করছে চিহ্নিত একটি কুচক্রীমহল। চাঁদা না পেয়ে এলাকার কিছু সন্ত্রাসীকে ব্যবহার করে, কিছু মানুষকে ভুক্তভোগী সাজিয়ে ভুয়া সংবাদ সম্মেলন করেছে। এসব অশুভ শক্তিকে কঠোর হাতে প্রতিহত করতে প্রস্তুত রয়েছে বাগান মালিক ও এলাকাবাসী।

বুধবার(১ আগস্ট) স্থানীয় প্রেস ক্লাবে বাড়বকু- বাগান মালিক সমিতি ও এলাকাবাসীর যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলা হয়।

বাগান মালিক সমিতি ও এলাকাবাসীর অভিযোগ,“ স্বনামধন্য শিল্প প্রতিষ্ঠান কেএসআরএম’র সুনাম ক্ষুন্নু করতে একটি বিশেষ মহল নানাভাবে অপতৎপরতা চালাচ্ছে।” এর অংশ হিসেবে কিছু মানুষকে ভুক্তভোগী সাজিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে আজ সকালে। এ অবস্থায় প্রকৃত সত্য তুলে ধরতে তাৎক্ষণিকভাবে বাগান মালিক ও এলাকাবাসী এই সংবাদ সম্মেলনের আযোজন করেছে। কেএসআরএম গ্রুপ হাজার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে সীতাকু- ও বাড়বকু- এলাকায়। শিল্প কারখানা স্থাপন করেছে। তাদের শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ড রয়েছে। এসব কারখানায় এলাকার হাজার হাজার বেকার যুবকের চাকরি হয়েছে।

লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, ২০১৬ সালে কেএসআরএম লিমিটেড তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য বাড়বকু-ের আনোয়ারা জুট মিলের ৪৫ দশমিক ৮৮ একর জায়গা দুই দফায় কিনে নেয়। এরপর কেএসআরএম কর্র্তৃপক্ষ সেখানে শিল্পায়ন শুরু করে। সেসব শিল্প প্রতিষ্ঠানে এলাকার শত শত মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু দুঃখের বিষয়, কালোটাকার মালিক একটি কুচক্রীমহলের জায়গাটির ওপর কুনজর পড়ে। তারা দখলে নেওয়ার জন্য উঠেপড়ে লাগে। এ জন্য তারা নানা ধরনের ষড়যন্ত্র এবং স্থানীয় মানুষ সন্ত্রাসীকে ব্যবহার করে চাঁদা দাবি করে। কিন্তু কেএসআরএম কর্তৃপক্ষ যেহেতু জায়গাটি সঠিক প্রক্রিয়ায় সরকারের কাছ থেকে নিয়েছে সে কারণে তারা কাউকে চাঁদা দেওয়া থেকে বিরত থাকে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সীতাকু- বাগান মালিক সমিতির সহ-সভাপতি নিজাম উদ্দিন। আরও উপস্থিত ছিলেন মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম, মোঃসোহেল ও জিয়া উদ্দিনসহ এলাকাবাসী।

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...