রুমা সড়ক ১১ দিন পর চালু

0

প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্ত রুমার সড়ক যোগাযোগ এগারো দিন পর চালু হয়েছে।

প্রবল বর্ষণে বিধ্বস্ত সড়কটি মোটামুটি সংস্কারের মাধ্যমে যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দিয়েছে সেনাবাহিনীর ২০ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটেলিয়ান।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) বিকাল থেকে চারটি ক্ষতিগ্রস্ত স্থানের পার্শ্ববর্তী বিকল্প রাস্তা দিয়ে রুমা সড়কে সবধরণের যানবাহন চলাচল শুরু হয়েছে।

সড়ক জনপথ বিভাগ ও সেনাবাহিনীর ২০ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটেলিয়ান সূত্রে জানা গেছে, রুমা সড়কের ওয়াইজংশন থেকে রুমা বাজার পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে সড়কটি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সাম্প্রতিক বন্যা, পাহাড় ধস এবং পাহাড়ি ঢলে। অবিরাম বর্ষণে সড়কটির ১৯ স্থানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তারমধ্যে ১৫ স্থানে আংশিক ক্ষতি এবং চারস্থানে সড়কটি সম্পূর্ণ ধসে গেছে।

প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সড়কটি বিধ্বস্ত হওয়ায় ১৪ জুলাই থেকে রুমা উপজেলা সড়কে সবধরণের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
সেনাবাহিনীর ২০ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটেলিয়ানের কর্মকর্তা লে. কর্নেল রোমিও বলেন, সড়কটি সম্পূর্ণ ঠিক করতে কমপক্ষে তিন থেকে চারমাস সময় লাগবে। কিন্তু জনস্বার্থ বিবেচনায় মানুষের দুর্ভোগ কমাতে ধসে যাওয়া চারটি স্থানে পাহাড় কেটে সাময়িকভাবে বিকল্প সড়ক তৈরি করে সড়কটি যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক রাখতে ৩ টনের অধিক ভারী যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছেনা।

তিনি আরো বলেন, শুধুমাত্র রুমা সড়কে ৩ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সড়কটিতে বান্দরবান থেকে চিম্বুক এবং ওয়াইজংশন থেকে রুমা সড়কটি ঝুকিপূর্ণ বেইলী ব্রিজগুলো বাতিল করে আরসিসি ব্রিজ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। সড়ক যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে বাজেট প্রস্তাবনাও পাঠানো হয়েছে।

জয়নিউজ/আলাউদ্দিন/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...