চাঙ্গা হচ্ছে নগর আ’লীগের মাঠের রাজনীতি

0

করোনা মহামারীর কারণে স্থবির হয়ে পড়ে নগর আওয়ামী লীগের মাঠের রাজনীতি। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলতি মাস থেকে তৃণমূলে সাংগঠনিক তৎপরতা শুরু করতে নির্দেশনা দিয়েছেন ক্ষমতাসীন দলটির হাইকমান্ড। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী মাঠের রাজনীতিকে চাঙ্গা করতে নগর আওয়ামী লীগ নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, নগরের সব সাংগঠনিক থানা ও ওয়ার্ড কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ। কারণ ৮ থেকে ১২ বছর ধরে একই কমিটি দায়িত্ব পালন করছে। আবার নেতাকর্মীদের দলাদলি এবং নতুন নেতৃত্ব না আসায় তৃণমূলে দলের সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। তাই তৃণমূলকে শক্তিশালী করতে বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) নগর আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হতে পারে। এ সভায় কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী ইউনিট ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করতে কর্মীসভাসহ নানা কর্মসূচি গ্রহণের কথা রয়েছে।

করোনাকালে নগর অওায়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীনের নেতৃত্বে অসহায় মানুষ ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী  বিতরণ করেন। আ জ ম নাছির উদ্দীনের ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রত্যেক থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিট কমিটির সদস্যদেরকে দেওয়া হয়েছিল ভালোবাসার উপহার। ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কোনো বিভেদ ছাড়া দলীয় সব কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছেন।

এবার তৃণমূলকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে সংগঠনকে চাঙ্গা করে তুলতে চাইছেন নগর আওয়ামী লীগের নেতারা। তারা প্রতিটি ইউনিট ঘুরে কর্মীসভার আয়োজন করবেন।

নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ বলেন, করোনার সময় রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড ছিল না। তখন আমরা সীমিত পরিসরে সামাজিক কর্মকাণ্ড নিয়ে ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের পাশে ছিলাম। এখন করোনা ভীতি তেমন একটা নেই। তাই প্রতিটি ইউনিট, ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ে কর্মীসভা করা হবে। থিয়েটার ইন্সটিটিউটে বর্ধিত সভায় ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে।

এব্যাপারে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন জয়নিউজকে বলেন, গত ছয় মাস করোনা কারণে স্থবির হয়ে পড়ে মাঠের রাজনীতি। তাই মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করতে চলতি মাস থেকে ৪৩টি ওয়ার্ডে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড চালানো হবে। তৃণমূলকে শক্তিশালী করতে প্রতিটি ওয়ার্ডে ও ইউনিট পর্যায়ে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে নগর আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত থাকবেন। ইউনিট স্তর থেকেই তৃণমূলের পরীক্ষিত ও ত্যাগীদের নিয়ে কমিটি গঠনের মাধ্যমে নগর আওয়ামী লীগে শক্তিশালী নেতৃত্ব গড়ে তোলা হবে। দলে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করছে। দু-একজন যারা নিষ্ক্রিয়, তারাও আশা করি সক্রিয় হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন নির্বাহী কমিটিতে যারা বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করছেন, তাদের প্রত্যেককেই পদ-পদবি অনুযায়ী কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হবে। অর্থাৎ যে যে দায়িত্বে আছেন পদ অনুযায়ী সেই দায়িত্ব পালনে শতভাগ নিবেদিত হতে হবে। তাদেরকে তৃণমূলে যেতে হবে।

জয়নিউজ/পিডি
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...