সহপাঠী-শিক্ষকদের সান্নিধ্যে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা

0

প্রায় দেড় বছর পর শ্রেণিকক্ষে ফিরেছে শিক্ষার্থীরা। শুরু হয়েছে পাঠদান। সারাদেশের মতো চট্টগ্রামেও স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খুলেছে স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসা।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে নগরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোই ভার্চুয়ালি নয়, স্বশরীরে বিদ্যালয়ে হাজির শিক্ষার্থীরা। আবারও শিক্ষার্থীদের কোলাহলে মুখরিত বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ।

তবে, এবারের চিত্র আগের মতো নয়। বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের প্রতিষ্ঠানে প্রবেশের আগে শরীরের তাপমাত্রা মেপেছে। মাস্ক ছাড়া কোনো শিক্ষার্থী যাতে প্রবেশ করতে না পারে সেই বিষয়টি কঠোরভাবে দেখভাল করেছেন শিক্ষকরা।

এছাড়া যাদের মুখে মাস্ক নেই তাদের জন্য মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজ করার জন্য ক্লাসের বাইরে স্যজনিটাইজার রাখা হয়েছে।তবে প্রতিষ্ঠানের বাহিরে অভিবাবক-শিক্ষার্থীদের ভিড়ের কারণে সামাজিত দূরত্ব মানা সম্ভব হয়নি।

 

শিক্ষকরা জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিবাবক ও শিক্ষার্থীদের সচেতন থাকতে হবে বলেও জানান তারা। শিক্ষার্থীদের সুস্থ রাখতে প্রতিটি প্রতিষ্ঠান সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধির উপর জোর দিচ্ছে। প্রথমদিন উপস্থিতির হার সন্তোষজনক।

মাস্ক নিশ্চিত করে, তাপমাত্রা মেপে ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রবেশ করানো হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। দীর্ঘদিন পরে বন্ধুদের সান্নিধ্য পেয়ে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা। কিছুটা শঙ্কা থাকলেও শ্রেণিকক্ষে পাঠদানে স্বস্তিতে অভিভাবকেরাও।

এর আগে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ২০২০ সালের ১৮ই মার্চ থেকে বন্ধ ছিলো দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

জয়নিউজ/পিডি

 

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...