কিভাবে করবেন লবণ দিয়ে রূপচর্চা?

0

প্রাকৃতিক উপায়ে ঘরে বসে আমরা বিভিন্ন উপাদান দিয়ে রূপচর্চা করি। কিন্তু লবণ দিয়েও যে রূপচর্চা করা যায় হয়তো অনেকের অজানা। বিভিন্ন রোগ সারাতে লবণ ওষুধ হিসেবেও ব্যবহার করা হয়। যেমন ত্বকের যে কোন জায়গার অ্যালার্জি দূর করতে লবণের ভূমিকা রয়েছে। আসুন তাহলে ঘরে বসেই লবণ দিয়ে করি ত্বকের রূপচর্চা। লবণ দিয়ে ত্বককে কিভাবে সুন্দর করবেন তার কিছু উপায়-

১) ত্বক ফেটে যাওয়া রোধ করে: শীতকাল ছাড়াও আমাদের শরীরে ত্বক ফেটে যায়। বিভিন্ন প্রোডাক্ট ব্যবহার করার পরও এর ঠিক ফল পাওয়া যায় না। এ সময় ঘরোয়া একটি উপায় কাজে লাগানো যেতে পারে। আধা চামচ লবণ নিয়ে তার সঙ্গে মধু মিশিয়ে নিন। তারপর সেই মিশ্রন সারা মুখে লাগিয়ে ফেলুন। দশ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে মুখটা ধুয়ে ফেলুন। এমনটা করলে ত্বক তার প্রয়োজনীয় আদ্রতা ফিরে পাবে। ফলে ত্বক ফেটে যাওয়া রোধ হবে।
২) শুষ্ক ত্বককে ভাল করে: ত্বকের উপরিভাগে জমে থাকা মৃত কোষেদের সরিয়ে দিয়ে ত্বককে উজ্জ্বল করার পাশাপাশি স্কিনকে আদ্র রাখতে লবণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। দুই চামচ লবণের সঙ্গে এক চামচ নারকেল তেল এবং দুই চামচ চিনি মিশিয়ে নিন। তারপর মিশ্রনটা ভাল করে মুখে লাগান। কিছুক্ষণ রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখটা ধুয়ে নিন। এতে মুখের শুষ্কতা দূর হবে।
৩) ত্বক পরিষ্কার রাখে: লবণ হলো প্রাকৃতিক উপাদান। এটি খুব সহজেই জমে থাকা ময়লা দূর করে মুখ পরিষ্কার রাখে। ফলে ত্বক সুন্দর এবং নরম হতে শুরু করে। অল্প করে লবণ নিয়ে তার সঙ্গে পছন্দের যে কোনও ফেসিয়াল অয়েল মেশান। এবার সেই তেলটা পানির সঙ্গে মিশিয়ে ভাল করে মুখে মাসাজ করুন। এই মিশ্রনটি ত্বককে ভেতর থেকে পরিষ্কার করে দেয়, ফলে ধীরে ধীরে ত্বক উজ্জ্বল এবং প্রাণবন্ত হতে শুরু করে।
৪) চোখের ফোলাভাব দূর করে: অনেক সময় চোখের নিচে ফোলাভাব দেখা যায়। দেখতে অস্বাভাবিক লাগে। এ সময় লবণের সঙ্গে ফেসিয়াল অয়েল মেশান। তরপর তুলো নিয়ে সেই পানিতে ডুবিয়ে চোখের উপর রাখুন। তুলটা কিছুক্ষণ চোখের উপর রেখে পরে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখটা ধুয়ে ফেলুন। দিনে দুবার এমনটা করলেই দেখবেন চোখের ফোলাভাব কমে যাবে।
৫) পায়ের যত্নেও লবণ: সেই আদি কাল থেকে পা-কে সুন্দর রাখতে লবণের ব্যবহার হয়ে আসছে। এক-দুই চামচ লবণ পানির সঙ্গে মিশিয়ে সেই পানিতে কিছুক্ষণ পা ডুবে বসে থাকুন। এমনটা করলে দেখবেন পায়ের ওপরি অংশে জমতে থাকা মৃত কোষগুলি ধুয়ে যাবে। সেই সঙ্গে পায়ের যন্ত্রণা এবং ফোলা ভাবও কমবে।
৬) ফাটা ঠোঁট রোধ করতে লবণ: অল্প করে লবণ নিয়ে পরিমাণ মতো নারকেল তেলের সঙ্গে মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান। কিছুক্ষণ রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ঠোঁটটা ধুয়ে ফেলুন। দিনে দুবার এই ঘরোয়া চিকিৎসাটি করলে ঠোঁটের ফাটা ভাব কমে গিয়ে ধীরে ধীরে ঠোঁটটা সুন্দর হতে শুরু করবে।

জয়নিউজ/পলাশ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...